স্বাধীনতা সংগ্রামে ছাত্রলীগের অবদান চিরস্মরণীয় : অধ্যাপক মোঃ জাকির হোসেন


sylnews প্রকাশের সময় : নভেম্বর ২৬, ২০২১, ২:৫২ পূর্বাহ্ন / ০ Views
স্বাধীনতা সংগ্রামে ছাত্রলীগের অবদান চিরস্মরণীয় : অধ্যাপক মোঃ জাকির হোসেন

সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মোঃ জাকির হোসেন বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর আদর্শিক সংগঠন হলো বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। স্বাধীনতা সংগ্রামে ছাত্রলীগের অবদান চিরস্মরণীয়। তিনি বলেন, আমিও এই সংগঠনের একজন কর্মী ছিলাম। ছাত্রলীগ করেই আমি এই অবস্থানে এসেছি। আমাদের সময়ে সময়মত সম্মেলন হওয়ার কারণে ছাত্রলীগের পাঁচটি কমিটিতে কাজ করার আমার সৌভাগ্য হয়েছে। এরপরই আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে যোগদান করি। ২০০৩ সালে মহানগর আওয়ামী লীগের প্রথম কমিটি গঠিত হয় যা ২০১১ সাল পর্যন্ত বিদ্যমান ছিলো। ঐ কমিটিতে সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করি। পরবর্তীতে ২০১১ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলাম। ২০১৯ সালের ৫ ডিসেম্বর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করেন। দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই আমরা মহানগর আওয়ামী লীগ-কে সুষ্ঠু ও সুশৃঙ্খলভাবে পরিচালনা করার চেষ্টা করে যাচ্ছি। রাজনীতির গুণগত পরিবর্তনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা’র হাতকে শক্তিশালী করার জন্য মহানগর আওয়ামী লীগ দৃঢ়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৭ ঘটিকায়
আখালিয়া ঘাট পেট্রোল পাম্পের সম্মুখে স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগ কর্তৃক আয়োজিত মহানগর ছাত্রলীগের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক মোঃ নাঈম আহমদ-কে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল। আজ বাংলাদেশের জন্য একটি ঐতিহাসিক দিন। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ‘স্বল্পোন্নত দেশ (এলডিসি) থেকে বাংলাদেশের উত্তরণের সুপারিশ অনুমোদন করেছে জাতিসংঘ।’এই সুপারিশ জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে গৃহীত হয়েছে।
স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণের জন্য একমাত্র দেশ হিসেবে তিনটি মানদণ্ডই পূরণ করেছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে।বাংলাদেশের এই অগ্রযাত্রাকে কেউ দাবায়ে রাখতে পারবে না। ২০৩৫ সালের মধ্যেই বাংলাদেশ হবে পৃথিবীর অর্থনৈতিক সমৃদ্ধ একটি দেশ। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশের প্রত্যেকটি অর্জন সমগ্র বিশ্বব্যাপী দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করবে এবং আরও বেশি উন্নয়নের যাত্রাকে ত্বরান্বিত করবে। তাঁর সুযোগ্য নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধু স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠিত হবেই। তিনি নবনির্বাচিত ছাত্রলীগের কমিটির উদ্দেশ্যে বলেন, নবনির্বাচিত ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দকে অভিভাবক সংগঠনের সাথে হাতে হাত মিলিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। যে কোনো দুর্যোগ-দুর্ভিপাকে সহযোগিতার হাত প্রসারিত করতে হবে এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ছড়িয়ে দিতে হবে। সুষ্ঠু ও স্বচ্ছ ধারার রাজনীতির চর্চা করার মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব গড়ে তুলতে হবে।

সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক বিভাগীয় উপ-সম্পাদক শহীদ মোঃ আকিল অপুর সভাপতিত্বে ও মদন মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মিফতাহুল হোসেন লিমন এর পরিচালনায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভায় প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বিধান কুমার সাহা। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক এবং ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলহাজ্ব মখলিছুর রহমান কামরান, কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এডভোকেট মোহাম্মদ জাহিদ সারোয়ার সবুজ ও এমরুল হাসান। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মহানগর আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক অমিতাভ চক্রবর্ত্তী রনি, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি এম.এ রশিদ আহমদ, সাবেক ছাত্র নেতা এমএইচ ইলিয়াস দিনার। বক্তব্য রাখেন মহানগর ছাত্রলীগের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক মোঃ নাঈম আহমদ।

এছাড়াও বক্তব্য রাখেন, জালালাবাদ থানা এলাকার স্থানীয় আওয়ামী লীগ,যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ । এসময়ে উপস্থিত ছিলেন জালালাবাদ থানা এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ ।