সিলেটে বহমান সম্প্রীতির বন্ধন যুগ যুগ ধরে অঁটুট থাকবে : অধ্যাপক মোঃ জাকির হোসেন


sylnews প্রকাশের সময় : অক্টোবর ১৪, ২০২১, ৩:৫১ অপরাহ্ন /
সিলেটে বহমান সম্প্রীতির বন্ধন যুগ যুগ ধরে অঁটুট থাকবে : অধ্যাপক মোঃ জাকির হোসেন

সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মোঃ জাকির হোসেন বলেছেন, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় পার্বন হচ্ছে শারদীয় দুর্গা পূজা। প্রতি বছরই সনাতন ধর্মাবলম্বীরা আনন্দ-উৎসাহের মাধ্যমে পূজা পালন করে থাকে। সকল ভেদাভেদ ভুলে সবাই পূজা উদযাপন করে। কিন্তু প্রায়ই দেখা যায়, একটি কুচক্রী মহল এই সম্প্রীতির বন্ধন নষ্ট করার জন্য বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করে থাকে। আমরা দৃঢ়ভাবে বলতে চাই, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে সকল সাম্প্রদায়িক ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে বাংলাদেশ এগিয়ে যাবেই। আমরা শক্ত হাতে সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করবো। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় কোনো সাম্প্রদায়িক অপশক্তির স্থান নেই। আমরা আপনাদের পাশে ছিলাম, পাশে আছি ও ভবিষ্যতেও পাশে থাকবো। সিলেটে বহমান সম্প্রীতির বন্ধন যুগ যুগ ধরে অটুট থাকবেই।

মঙ্গলবার দুপুর সোয়া বারটায় (১৪ সেপ্টম্বর) নগরীর বিভিন্ন পূজামণ্ডপ পরিদর্শনকালে মিডিয়ায় সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় তিনি এসব বক্তব্য রাখেন।

তিনি বলেন, দুর্গা প্রতিমা বিসর্জনের পূর্ব মুহূর্ত পর্যন্ত সকল নেতৃবৃন্দকে সজাগ থাকতে হবে। কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে সে জন্য মহানগর আওয়ামী লীগ ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সকল নেতৃবৃন্দকে সর্তক থেকে পূজা কমিটির নেতৃবৃন্দের সাথে সার্বক্ষনিক যোগাযোগ ও সহযোগিতা করতে হবে। সকলকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে শারদীয় দুর্গা পূজা উদযাপনেরও আহবান জানান।

সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মোঃ জাকির হোসেন এর নেতৃত্বে
নেতৃবৃন্দ নগরীর মির্জাজাঙ্গালস্থ সনাতন যুব ফোরাম থেকে পূজামন্ডপ পরিদর্শনের সূচনা করে। নেতৃবৃন্দ পরবর্তীতে নগরীর দাড়িয়াপাড়া চৈতালি সংঘ, ঝুমকা সংঘ, শ্রী শ্রী রক্ষা কালিবাড়ি, মণিপুরী রাজবাড়ী, কাজলশাহ, বৃহত্তর বাগবাড়ি সার্বজনীন পূজা সংঘ, ব্রাক্ষণশাসন শ্রী শ্রী কালিবাড়ি মন্দির, উদীয়মান ভাটি বাংলা সংঘ, ভাটি বাংলা যুব সংঘ, শাপলা সংঘ, ব্রাহ্মণ শাসন সার্বজনীন পূজা সংঘ, ভাটিবাংলা পনিটুলা সংঘ সহ বিভিন্ন পূজামণ্ডপ পরিদর্শন করেন।

পূজামণ্ডপ পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জগদীশ চন্দ্র দাস, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক ইলিয়াছুর রহমান ইলিয়াছ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক রজত কান্তি গুপ্ত, উপ-দপ্তর সম্পাদক অমিতাভ চক্রবর্ত্তী রনি, কার্যনির্বাহী সদস্য আবুল মহসিন চৌধুরী মাসুদ, কাউন্সিলর বিক্রম কর সম্রাট, ২নং, ৮নং, ২৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক গৌসুল আলম গেদু, তাজ উদ্দিন লিটন, শেখ সোহেল আহমদ কবির, নজরুল ইসলাম নজু।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উত্তম চৌধুরী, চিন্ময় চৌধুরী, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি এম.এ রশিদ, ৯নং স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব কুমার দেব, প্রভাষক মিন্টু চন্দ্র দাস, প্রভাষক রনদ্বীপ চৌধুরী লিংকন, রকি দেব, অপূর্ব কুমার দাস, যুব লীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ সিরাজুল ইসলাম মিরাজ, মামুন আহমদ, ইব্রাহিম আহমদ শাওন, সাইদুল ইসলাম খান, নিতিশ রঞ্জন দাস অপু, নসু ভৌমিক, নয়ন রায় সহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।