প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিনে মহানগর আওয়ামী লীগ’র দোয়া মাহফিল এবং শিরনী বিতরণ


sylnews প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২১, ৫:২১ অপরাহ্ন /
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিনে মহানগর আওয়ামী লীগ’র দোয়া মাহফিল এবং শিরনী বিতরণ

সিলনিউজ ডেস্কঃ সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমেদ বলেছেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা দীর্ঘ সংগ্রাম, আন্দোলন, ত্যাগ-তিতীক্ষার মধ্যে দিয়ে আজকের এই অবস্থান পৌঁছেছেন। পিতার স্নেহ-মমতা থেকে প্রায়ই তিনি বঞ্চিত হয়েছেন। ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার পর দীর্ঘ সময় বিদেশে অবস্থান করেন। ১৯৮১ সালে স্বদেশে প্রত্যাবর্তন করে শুধু বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের হাল ধরেননি বাংলাদেশেরই হাল ধরেছিলেন। তিনি এরশাদ বিরোধী আন্দোলনসহ সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলনে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পরই তিনি বাংলাদেশের উন্নয়নের রূপরেখা পাল্টে দিয়েছিলেন।

জননেত্রী শেখ হাসিনার ৭৫ তম জন্মবার্ষিকীতে সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বাদ যোহর হযরত শাহজালাল (রহঃ) দরগাহ মসজিদের নিচ তলায় দোয়া মাহফিল এবং শিরনী ও শিশুদের মাঝে নতুন বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন ২০০৮ সালে আবারও জনগণের সংখ্যাগরিষ্ঠ সমর্থন নিয়ে জননেত্রী ক্ষমতায় আসেন। তারপর থেকে বাংলাদেশকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। তাঁর জাদুকরী নেতৃত্বের মাধ্যমে বাংলাদেশ বিশ্বের বুকে ইউএন কর্তৃক উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। ইতিমধ্যে তিনি এসডিজির শর্তপূরণে সক্ষমতা অর্জন করায় জাতিসংঘের ক্রাউন জুয়েল পুরস্কারে ভূষিত করেছেন। ২০৪১ সালে উন্নত বাংলাদেশের স্বপ্ন নিয়ে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। জননেত্রীর অসাধারণ নেতৃত্বের কারণে বাংলাদেশে অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হচ্ছে যা অতীতের কোনো সরকারের সাথে তুলনা করা চলে না।

সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে ও
সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মোঃ জাকির হোসেন এর পরিচালনায় দোয়া মাহফিল এবং শিরনী ও শিশুদের মাঝে নতুন বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ফয়জুর আনোয়ার আলাওর, নুরুল ইসলাম পুতুল, মোঃ সানাওর, জগদীশ চন্দ্র দাস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এটিএম হাসান জেবুল, আজাদুর রহমান আজাদ, আইন বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট বেলাল উদ্দিন, দপ্তর সম্পাদক খন্দকার মহসিন কামরান, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক নজমুল ইসলাম এহিয়া, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুর রহমান জামিল, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মহিউদ্দিন লোকমান, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ জুবের খান, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক সেলিম আহমদ সেলিম, শ্রম সম্পাদক আজিজুল হক মঞ্জু, সাংস্কৃতিক সম্পাদক রজত কান্তি গুপ্ত, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ হোসেন রবিন, উপ-দপ্তর সম্পাদক অমিতাভ চক্রবর্ত্তী রনি, সহ-প্রচার সম্পাদক সোয়েব আহমদ, কার্যনির্বাহী সদস্য আজম খান, মুক্তার খান, এডভোকেট মোহাম্মদ জাহিদ সারোয়ার সবুজ, রাহাত তরফদার, এমরুল হাসান, সুদীপ দেব, সাব্বির খান, সৈয়দ কামাল, সাইফুল আলম স্বপন, ওয়াহিদুর রহমান ওয়াহিদ, জামাল আহমদ চৌধুরী, খলিল আহমদ, আবুল মহসিন চৌধুরী মাসুদ, মহসিন চৌধুরী, জুমাদিন আহমেদ ও উপদেষ্টা আব্দুল মালিক সুজন।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহানগর তাঁতী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আবুল হাসনাত বুলবুল, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ জুনেদ আহমদ শওকত, জুনু মিয়া, মুহিবুর রহমান সাবু, হাজী মোহাম্মদ ছিদ্দিক আলী, সালাউদ্দিন বক্স সালাই, মাহবুবুর রহমান মবু, মুফতি আব্দুল খাবির, জায়েদ আহমেদ খান সায়েক, নজরুল ইসলাম নজু, শেখ সুরুজ আলম, বদরুল ইসলাম বদরু, মানিক মিয়া, শেখ সোহেল আহমদ কবির সহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন এর নেতৃবৃন্দ।

দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন রায়নগর বায়তুল বরাদ জামে মসজিদের ইমাম আবিদ হাসান রাহমানি। দোয়া মাহফিলে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব সহ পরিবারের সকল নিহত সদস্যের রুহের মাগফেরাত কামনা করা হয়। জননেত্রী শেখ হাসিনা’র সুদীর্ঘায়ু ও সুস্থতা কামনা সহ দেশ ও জাতি এবং বিশ্বের শান্তি কামনা করা হয়।