উন্নয়ন ও বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠায় পারস্পরিক ঐক্যের উপর জোর দিতে হবে : শেখ হাসিনা

সিলনিউজ অনলাইনঃ বিভেদ নয়, উন্নয়ন ও বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠায় পারস্পরিক ঐক্যের উপর জোর দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, অবকাঠামো, অবাধ বাণিজ্য ও ব্যাপক বিনিয়োগের মাধ্যমেই এশিয়ার চেহারা পাল্টে দেয়া সম্ভব। আজ (বৃহস্পতিবার) জাপানের টোকিও’তে স্থানীয় সময় সকালে ২৫তম ফিউচার অব এশিয়া কনফারেন্সে এ কথা বলেন তিনি। মানবিকতার পাশাপাশি আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখতেই বাংলাদেশ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর বোঝা টানছে বলেও উল্লেখ করেন শেখ হাসিনা।

দেশে দেশে বাজছে যুদ্ধের দামামা, সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদের বিস্তার ঘটেছে বিশ্বব্যাপী। মানবসৃষ্ট এসব বিপর্যয়ের পাশাপাশি জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলা, সব মিলে বৈশ্বিক উষ্ণায়নসহ নানা ঝুঁকিতে রয়েছে এশিয়ার দেশগুলো।

এমন প্রেক্ষাপটে এশিয়ার দেশগুলোকে নিয়ে জাপানের টোকিও তে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ‘এশিয়ার ভবিষ্যত সম্পর্কিত ২৫ তম আন্তর্জাতিক সম্মেলন।’ যেখানে যোগ দেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির বিন মোহাম্মদ, কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুনসেনসহ এশীয় অঞ্চলের নেতারা।

চারদিনের জাপান সফরের তৃতীয় দিনে প্রধান আলোচক হিসেবে এই সম্মেলনে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মূল আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী বিগত ১০ বছরে বাংলাদেশের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে বলেন, উন্নয়ন তখনই সম্ভব যখন বিশ্বে শান্তি বজায় থাকবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশ বিনিয়োগকারীদের সহায়তা করে আসছে। যার প্রভাব পড়ছে অর্থনীতিতে। বাড়ছে জিডিপির হার। আঞ্চলিক শান্তি রক্ষা করতে গিয়ে উসকানি সত্ত্বেও বাংলাদেশ বিপুল সংখ্যক রোহিঙ্গার বোঝা টানছে বলেও জানান শেখ হাসিনা।

আনুষ্ঠানিক বক্তব্যে জাপানের যেকোনো বিনিয়োগ বাংলাদেশ সাদরে গ্রহণ করবে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx