বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে জিয়া পরিবারের প্রতিনিধিত্ব চায় স্থানীয় বিএনপি

সিলনিউজ অনলাইনঃ বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে জিয়া পরিবারের প্রতিনিধিত্ব চায় স্থানীয় বিএনপি। আর নির্বাচনে অংশ নেয়ার বিষয়ে মতভেদ থাকলেও এ নিয়ে দলীয় ফোরামেই চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন নেতারা।

সদর উপজেলা নিয়ে গঠিত বগুড়া ৬ আসনটি বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার আসন বলে পরিচিত। দুটি দুর্নীতি মামলায় সাজা হওয়ায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি নির্বাচিত হয়েও শপথ না নেয়ায় গত ৩০ এপ্রিল আসনটি শূন্য ঘোষণা করা হয়।

পরে নির্বাচন কমিশন আগামী ২৪শে জুন উপনির্বাচনের তারিখ ঠিক করে তফসিল ঘোষণা করে। উপ-নির্বাচনে অংশ নেয়ার বিষয়ে কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত না পেলেও স্থানীয় বিএনপি চায় জিয়া পরিবারের কেউ প্রার্থী হোক।

বগুড়া বিএনপির সদ্য বিলুপ্ত জেলা কমিটির যুগ্মসাধারণ সম্পাদক নাজমুল হুদা পাপন বলেন, বগুড়াবাসীর জন্য জিয়া পরিবারের যে কেউ প্রার্থী হলেই সেটি আমাদের সবার জন্য মঙ্গলজনক হবে।

তবে এ বিষয়ে ভিন্নমত জেলা কমিটির সহ-সভাপতি শাহাজাদী লায়লা আরজুমান বানু্র। তিনি বলেন, আমি মনে করি বিএনপি থেকে স্থানীয়ভাবে কাউকে নির্বাচনের প্রার্থী করা উচিত। আর এই উপ-নির্বাচনেও বিএনপির অংশগ্রহণ করা উচিত। উপনির্বাচনে অংশ নেয়ার বিষয়ে এখনো দলের ভেতরে মতবিরোধ রয়েছে।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেন, আমি একজন রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে আমার অভিজ্ঞতা থেকে আমি বলি রাজনীতিকে কখনো নেতিবাচকভাবে না দেখে ইতিবাচকভাবেই দেখা উচিত। আর ইতিবাচকভাবে রাজনীতি করলেই ভালো ফলাফল সম্ভব আর না হলে সম্ভব না।

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু বলেন, আমি মনে করি যেহেতু বিএনপি এই নির্বাচনে সম্মতি দেয় নাই, তাই নির্বাচনে যাওয়াটাও ঠিক হবে না।

তবে নির্বাচনে অংশ নেয়ার বিষয়টি দলের সবোর্চ্চ ফোরামে আলোচনা করেই চুড়ান্ত করা হবে বলে জানান বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল। তিনি বলেন, এই বিষয়টি নিয়ে আমাদের যে জাতীয় স্থায়ী কমিটি আছে, তারা দুই-একদিনের মধ্যেই বসবে। সে বৈঠকেই এই বিষয়টি নিয়ে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, এটি নিয়ে এখনও আমাদের মধ্যে কোন আলাপ-আলোচন হয়নি বা আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে এখনও বসি নাই। বৈঠকে বসার পরই আমরা বলতে পারবো আমরা নির্বাচনে যাচ্ছি কি যাচ্ছি না।

ডিবিসি নিউজ

ফেসবুক মন্তব্য
xxx