ভালোবাসার স্বপ্নগুলো যেমন থাকে : তানিয়া সুলতানা তানি

সারাজীবন একসঙ্গে পথা চলার প্রতিজ্ঞাবদ্ধ প্রেম হঠাৎ একটা দমকা হাওয়াতে ভেঙে গেলে সে আঘাত সহ্য করতে না পেরে করা পাগলামীগুলো মোটেই অস্বাভাবিক না। আমি এগুলো দেখে মোটেও অবাক হই না। কেউ হাত কাঁটছে, কেউ ডায়রীর পাতা ছিঁড়ছে, কেউ কেঁদে কেঁদে বালিশ ভেজাচ্ছে, কেউ ঘুমের ওষুধ খাচ্ছে, কেউ সিলিং ফ্যানে দড়ি ঝুলিয়ে রাখছে, কেউ নতুন সিগারেট ধরছে, কেউ হাত পা ছড়িয়ে চিৎকার করছে, কেউ দু’চার দিন না খেয়ে আছে.. এগুলো মোটেও অস্বাভাবিক না। এগুলো মোটেই বোকামী না। এগুলো মোটেই সস্তা আবেগ না।

কত স্বপ্ন থাকে সম্পর্ক নিয়ে! বিয়ে করবে, নতুন সংসার হবে, ছোট্ট একটা ঘর হবে।দুজনে মিলে একসাথে সাজাবে সেই ঘরটা, দেয়ালে দুজনের ছবি থাকবে, টিভির রুমটায় দুজন বসার মতো একটা সোফা থাকবে, সপ্তাহের শেষ দিন ওই সোফায় বসে মুভি দেখবে।

রান্না শেখার চেষ্টা থাকবে, হাত-পুড়িয়ে রান্না করবে, তেল কম হবে লবন বেশী হবে, খাওয়া যাবে না তবু ভালোবেসে খেয়ে নেবে, অফিসে যাবার সময় টাই বেধে দেবে, অফিসে গিয়ে মিস করবে, বার বার ফোন দেবে, বাসায় ফেরার সময় একটা বকুল ফুলের মালা নিয়ে আসবে।

বিকালে দুজনে মিলে বাইরে যাবে, পছন্দের নীল শাড়ী-পাঞ্জাবী পরবে, বেশী ঝাল-টক দিয়ে ফুসকা খাবে, রাস্তায় হাটতে হাটতে হঠাৎ করে আঙ্গুল ধরে বসবে, বাসের সীটে বসে কাঁধে মাথা রেখে ঘুমাবে, অসুস্থ হলে রাত জাগবে, আহ্লাদ করে খাইয়ে দেবে!

ছেলে-মেয়ের নামও রাখা হয়ে যাবে, ঝড় ঝাপটায় একই ছাতার নিচে থাকবে, বয়স বাড়ার সাথে সাথে সময় মতো ওষুধ খাইয়ে দেবে, প্রেসার মেপে দেবে, বৃদ্ধ বয়সে ঘোলাটে চশমাটা মুছে দেবে।

স্পর্শে মানুষটা না থাকলেও বিধাতার কাছে করা প্রতিটা প্রার্থনায় মানুষটা থাকবে। দেয়ালে টাঙানো ছবিটা হাতে নিয়ে বার বার হাত বুলিয়ে আদর করবে। চোখটা ভারী হয়ে আসবে, চশমাটা ভিজে যাবে। ধরা যাবে না, ছোয়া যাবে না.. তবু মানুষটা থাকবে প্রতিটা স্পন্দনে..

এত সাধের স্বপ্নগুলো ভেঙে যাবার পর কেউ স্বাভাবিক থাকতে পারে না। এই সময়টাতে আপনি তাকে ম্যাচিউরিটি শেখাতে যাবেন না, স্বপ্নভাঙ্গা বিধ্বস্ত মস্তিষ্কে ম্যাচিউরিটি আসে না। আপনি হয়তো তাকে ইমম্যাচিউরড পাগল বলবেন। কিন্তু মনে রাখবেন, এই ইমম্যাচিউরিটি এবং পাগলামী গুলোই তার কাছে ভালোবাসা..

কয়েকশো বছরের অগ্রিম দেখা স্বপ্ন ভেঙে যাওয়ার যন্ত্রনা সহজে মেনে নেয়া যায় না, কখনোই না… তাই নিজে ভালো থাকুন ও ভালোবাসার মানুষ টাকে যত্নে রাখুন।

লেখকঃ তানিয়া সুলতানা তানি

ছবিঃ সংগ্রহীত

ফেসবুক মন্তব্য
xxx