১৪ বছরেও শেষ হয়নি সাবেক অর্থমন্ত্রী কিবরিয়া হত্যাকাণ্ডের বিচার কার্যক্রম

সিলনিউজঃ ১৪ বছর পার হলেও শেষ হয়নি ঘাতকদের গ্রেনেড হামলায় নিহত সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়াসহ পাঁচজনের হত্যাকাণ্ডের বিচার কার্যক্রম। ২০০৫ সালের ২৭ জানুয়ারি হবিগঞ্জের বৈদ্যের বাজার গ্রেনেড কামলা করে হত্যা করা হয় সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়াসহ পাঁচজনকে। সেসময় আহত হন আরো ৭০ জন।

দীর্ঘ ১৪ বছর পার হয়ে গেলেও এ হত্যাকাণ্ডের বিচার কার্যক্রম শেষ না হওয়ায় হতাশ নিহতদের স্বজন ও এলাকাবাসী। তবে শিগগিরই হত্যাকাণ্ডের বিচার সমাপ্ত হবে বলে আশাবাদ মামলার বাদীর।

ঘটনার পর দিন রাতেই তৎকালীন হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের  সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুল মজিদ খান বাদী হয়ে হত্যা ও বিস্ফোরক আইনে দু’টি মামলা দায়ের করেন। বাদীপক্ষের নারাজির প্রেক্ষিতে পরপর দু’বার তদন্ত প্রতিবেদন জমা ও তদন্তকারী কর্মকর্তা পরিবর্তন করায় মামলার কার্যক্রম বিলম্ব হয়। সর্বশেষ সিআইডি তৃতীয় সম্পূরক অভিযোগপত্র দাখিল করে।

অভিযোগপত্রে সাবেক স্মরাষ্ট্রমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর, মুফতি হান্নান, সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, হবিগঞ্জ পৌর মেয়র জি কে গউছ, হারিছ চৌধুরীসহ ৩৫ জনকে আসামী করা হয়। বর্তমানে মামলা দুটি সিলেট দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বিচারাধীন রয়েছে। বিচার কার্যক্রম শেষ না হওয়ায় হতাশ নিহতদের স্বজন ও এলাকাবাসী।

কিবরিয়া হত্যা মামলায় অধিকাংশ স্বাক্ষ্যগ্রহণ শেষ পর্যায়ে বলে জানান মামলার বাদী অ্যাডভোকেট মো. আব্দুল মজিদ খান এমপি। তিনি বলেন, অধিকাংশ সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে। তাড়াতাড়ি মামলার সমাপ্তি যাতে হয় সেই প্রত্যাশা করি।

এ ঘটনায় জড়িতদের বিচার দ্রুত সম্পন্ন করা দাবি আহতদের। গ্রেনেড হামলায় আহত আব্দুল্লাহ সরদার বলেন, আমরা শরীরে গ্রেনেডের অসংখ্য স্পিন্টার। আমি এই হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু বিচার চাই। হতাহতদের পরিবারের দাবি, প্রকৃত দোষীদের যেন দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করা হয়। সূত্রঃ সময় টিভি

ফেসবুক মন্তব্য