সিলেটে নিহত সারোয়ারের ঘাতক বাস চালককে গ্রেফতারে আল্টিমেটাম, মানববন্ধন ও অবরোধ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বাস চাপায় নিহত সিলেট সরকারি কলেজের ছাত্রলীগ কর্মী সারোয়ার খান’র ঘাতক হানিফ পরিবহনের বাস চালককে গ্রেফতারে জন্য ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দেওয়া হয়েছে।

আজ ১৩ জানুয়ারি (রোববার) দুপুরে সিলেটের মেজরটিলায় সিলেট-তামাবিল সড়ক অবরোধ করে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী। এসময় মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত মানববন্ধন ও সমাবেশ থেকে ২৪ ঘন্টার সময় বেঁধে দিয়ে অবিলম্বে ঘাতক বাস চালককে গ্রেফতার করার দাবী জানানো হয়। অন্যথায় কঠোর কর্মসূচি ঘোষণারও হুমকি দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য গত ১০ তারিখ (বৃহস্পতিবার) জাফলং থেকে ফেরা হানিফ পরিবহনের একটি বাস খাদিমপাড়া ইউনিয়নের ইসলামপুরে সারোয়ার খানের মোটর সাইকেলকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই নিহত হন তিনি। দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হন আরেক ছাত্রলীগকর্মী অনিক। দুর্ঘটনার পরপরই ঘাতক বাস চালক পালিয়ে যায়।

মহানগর যুবলীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে ও সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলামের পরিচালনায় উক্ত মানববন্ধন ও সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- স্কলার্সহোম স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আবদুল হাই জামালী, আল আমিন জামেয়া ইসলামীয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জসিম উদ্দিন, হযরত শাহজালাল (রহ.) উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুরঞ্জিত দাস, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক দেবাংশু দাস মিঠু, ব্যবসায়ী মোয়াক্কির আহদ সিদ্দিকী, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ সভাপতি এম এ সামাদ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক শাহেদ আহমদ, সহ নাট্য সম্পাদক ফাহাদ আহমদ রুমেল, জেলা যুবলীগের অর্থ সম্পাদক অপু তালুকদার, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ওয়ালীউল্লাহ বদরুল, সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক মিঠু তালুকদার, সঞ্জয় চৌধুরী, এমসি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা দেলোয়ার হোসেন, হোসেন আহমদ, সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা নাজমুল ইসলাম, জিলহাজ চৌধুরী প্রমুখ।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে একাত্মতা পোষন করে অংশগ্রহণ করেন এমসি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগ, সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ, শাহপরাণ থানা ছাত্রলীগ, খাদিমপাড়া ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগ, সিলেট এসমি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, সরকারি কলেজ, স্কলার্সহোম স্কুল এন্ড কলেজ, আল আমিন জামেয়া ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, শাহজালাল উচ্চ বিদ্যালয়, শাহপরাণ উচ্চ বিদ্যালয়, দেবপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও এলাকার সাধারণ মানুষ।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx