নিউজটি পড়া হয়েছে 62

শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে শিক্ষামন্ত্রী

সিলনিউজ ডেস্কঃ হপাঠীর আত্মহত্যার ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুলের সামনে অবস্থান নিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। একইসঙ্গে কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নাজনীন ফেরদৌসকে অভিযুক্ত করে তার পদত্যাগের দাবি জানিয়েছেন অভিভাবকরাও।

আজ মঙ্গলবার (৪ ডিসেম্বর) সকাল ১০টা থেকে বিভিন্ন ধরনের প্ল্যাকার্ড নিয়ে বিক্ষোভ করছেন শিক্ষার্থীরা। এক পর্যায়ে তারা কলেজের সামনে বেইলি রোডের সড়কে বসে পড়েন।

নিহতের সহপাঠী ৯ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী বলেন, আমরা ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই। প্রিন্সিপাল ও ভাইস প্রিন্সিপালের পদত্যাগ চাই। তাদের খামখেয়ালির কারণেই মরতে হয়েছে অরিতীকে।

প্রতিবাদে অংশ নেওয়া ৯ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীর মা শাহনাজ নুর বলেন, স্কুল কর্তৃপক্ষের খামখেয়ালির কারণেই এমন ঘটনা ঘটেছে। শিক্ষার্থী যদি নকল করে থাকে সেজন্য সে ক্ষমা চেয়েছে। স্কুল কর্তৃপক্ষ অরিতীকে বহিষ্কার করতে পারতো। তা না করে তাকে টিসি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। আমরা জড়িতদের বিচার চাই।

এদিকে অরিতী অধিকারীর আত্মহত্যার ঘটনায় পরিদর্শনে গিয়ে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে পড়েন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

খবর পেয়ে সকালে ঘটনাস্থলে যান শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। স্কুলে বাবার অপমানের পর ছাত্রীর আত্মহত্যার বিষয়টিকে ‘খুবই গুরুতর’ বলে উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা তদন্ত করে তার (অরিত্রী) বিষয়গুলো চিহ্নিত করব, আমরা তদন্তের জন্য তিন দিন সময় দিয়েছি।’

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘এখানে যা শোনা যাচ্ছে সেটি হলো, মেয়েটি অপমানিত বোধ করে বাড়িতে গিয়ে আত্মহত্যা করে। তাহলে বিষয়টা কতটুকু গভীর এবং সে কতটা মর্মাহত হয়েছে, সে কতটা কষ্টের শিকার হয়েছে যে সে নিজের জীবন বিসর্জন দিতে বাধ্য হয়েছে।’ তিনি তদন্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে দোষী শিক্ষকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন।

এরইমধ্যে ছাত্রী আত্মহত্যার ঘটনায়  পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং স্কুল কর্তৃপক্ষ মঙ্গলবার (৪ ডিসেম্বর) পৃথক কমিটিগুলো গঠন করেছে।

সূত্রঃ বাংলা নিউজ

ফেসবুক মন্তব্য
xxx