নিউজটি পড়া হয়েছে 33

মনোনয়ন ফিরে পেতে ইসিতে রনি

সিলনিউজ  অনলাইন ডেস্কঃ  মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়া আওয়ামী লীগের সাবেক সাংসদ ও বিএনপি প্রার্থী গোলাম মওলা রনি মনোনয়ন ফিরে পেতে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) আপিল করেছেন।  

গতকাল রবিবার সেসহ ৭৮৬ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করে ইসি। এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল শুরু করেছেন বেশ কয়েকজন প্রার্থী।

সোমবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত ২২ জন আপিল করেছেন।

তাদের মধ্যে রয়েছেন: পটুয়াখালী-৩ থেকে গোলাম মাওলা রনি, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ থেকে নবাব মোহাম্মদ শামছুল হুদা, বগুড়া-৭ থেকে খোরশেদ মিলটন, খাগড়াছড়ি থেকে আব্দুল ওয়াদুদ ভূঁইয়া, ঝিনাইদহ-১ থেকে আব্দুল ওয়াহাব, ঢাকা-২০ থেকে তমিজউদ্দিন, সাতক্ষীরা-২ থেকে মোহাম্মদ আফসার আলী, কিশোরগঞ্জ-২ থেকে মো. আখতারুজ্জামান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ মো. তৈয়ব আলী, মাদারীপুর-৩ থেকে মো. আব্দুল খালেক, দিনাজপুর-২ থেকে মোকারম হোসেন, ঝিনাইদহ-২ অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট আব্দুল মজিদ, ঢাকা-১ খন্দকার আবু আশফাক, দিনাজপুর-৩ থেকে সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম, জামালপুর-৪ থেকে ফরিদুল কবির তালুকদার, পটুয়াখালী-৩ থেকে মো. শাহাজাহান, পটুয়াখালী-১ থেকে মো. সুমন সন্যামাত, দিনাজপুর-১ থেকে পারভেজ হোসেন, মাদারীপুর-১ থেকে জহিরুল ইসলাম মিন্ট, সিলেট-৩ থেকে কাইয়ুম চৌধুরী, ঠাকুগাঁও-৩ থেকে এসএম খলিলুর রহমান ও জয়পুরট-১ থেকে মো. ফজলুর রহমান।

এদের মধ্যে এক শতাংশ ভোটার না থাকার জন্য চারজন, ত্রুটিপূর্ণ মনোনয়নের জন্য তিনজন, লাভজনক পদে থাকার জন্য সাতজন, হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকার জন্য একজন, আয়কর রিটার্নি দাখিল না হওয়ার জন্য একজন, ঋণখেলাপী দুইজন ও দণ্ডপ্রাপ্ত দুইজন ও অন্যান্য কারণে দুইজনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

আপিল শেষে গোলাম মাওলা রনি বলেন, ‘কমিশন যেহেতু সরকারের আজ্ঞাবহ নয়, তাদের মেরুদণ্ড আছে, তাই আমি আশাবাদী, শুনানি শেষে আমার মনোনয়নপত্র ফিরিয়ে দেওয়া হবে।’

হলফনামায় নিজের স্বাক্ষর না থাকায় মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয় গোলাম মাওলা রনির। এ বিষয়ে তিনি বলেন, হলফনামার অনুলিপিতে স্বাক্ষর না থাকা আমার ভুল ছিল। তবে এটা গুরুতর কোনো ভুল নয়। আমি রিটার্নিং কর্মকরতাকে বলেছিলাম, সঠিক করে দেব। তবে তিনি তাতে রাজি হননি। আমার মনোনয়নপত্র বাতিল করে দেন। আগের নির্বাচনগুলোতে এ ধরনের ভুল-ভ্রুান্তি সংশোধন সুযোগ ছিল, কিন্তু এবার পেলাম না।

এর আগে ৩ ডিসেম্বর সকালে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, যেসব মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষিত হয়েছে, সেসব প্রার্থীরা তাদের প্রার্থিতা ফিরে পেতে ৫ই ডিসেম্বর পর্যন্ত কমিশনে আপিলের সুযোগ পাবেন। ৬, ৭, ৮ ডিসেম্বর আপিলের বিষয়ে নিষ্পত্তি করবে কমিশন।

গতকাল ২ ডিসেম্বর ছিল মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের দিন। সারা দেশে দাখিল করা ৩ হাজার ৬৫টি মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের পর ২ হাজার ২৭৯টি মনোনয়নপত্র বৈধ এবং ৭৮৬টি মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx