নিউজটি পড়া হয়েছে 61

ছাতকে সংঘর্ষে অস্ত্রধারী লিটনকে গ্রেফতার ও অস্ত্র উদ্ধারের দাবীতে ফুঁসে উঠেছে এলাকাবাসী

সিলনিউজ ডেস্কঃ দক্ষিণ ছাতকে সংঘর্ষে প্রতিপক্ষের উপর ব্যবহৃত অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধারের দাবীতে উত্তাল হয়ে উঠেছে এলাকাবাসী। আগামী ৭ দিনের মধ্যে এসব অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে ব্যর্থ হলে এলাকাবাসী লাগাতার আন্দোলনে যাওয়ার হুমকী দিয়েছে। এসব অবৈধ অস্ত্র আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রভাব ফেলার আশংকাও করছেন তারা।

গত ২৪ নভেম্বর ফুটবল খেলারমাঠে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে উপজেলার দোলারবাজার ইউনিয়নের বারগোপী গ্রামের জমির আলী ও লুৎফুর রহমান পক্ষদ্বয়ের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষ চলাকালে এক পর্যায়ে জমির আলী ও লিটন মিয়া প্রতিপক্ষের উপর আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে গুলিবর্ষন করে। এতে প্রতিপক্ষের ১০ জন গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।

এ ঘটনায় গত ২৬ নভেম্বর গ্রামের লুৎফুর রহমান বাদী হয়ে ৪৭জনের বিরুদ্ধে ছাতক থানায় একটি মামলা(নং-১৭) দায়ের করেন।

১ ডিসেম্বর (শনিবার) সকালে দোলারবাজারে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, অস্ত্রধারীদের গ্রেফতার ও তাদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবীতে প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন করা হয় বৃহত্তর দোলারবাজার এলাকাবাসীর ব্যানারে। সভায় মুখে হাত রেখে সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের প্রতিবাদ ও নিন্দা জানান উপস্থিত লোকজন।

স্থানীয় আজহার আলীর সভাপতিত্বে ও আব্দুল মুমিনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন, আওয়ামীলীগ নেতা আলী আকবর, আশিক মিয়া, স্থানীয় হাজী আফরোজ মিয়া, আব্দুল মতিন, মহিবুর রহমান, হাজী মবশ্বির আলী, সাবেক মেম্বার গিয়াস উদ্দিন রেজা, সাবেক মেম্বার আকিকুর রহমান, বর্তমান মেম্বার হাফিজ আব্দুল জলিল, আব্দুল আলিম, ব্যবসায়ী গৌছ মিয়া, প্রবাসী আমির আলী, ডাক্তার ফখর উদ্দিন, মুহিবুর রহমান, শহিদুল আলম ছায়াদ মিয়া, হাজী মুশফিকুর রহমান, আবুল হোসেন, নেছার আহমদ, আশক আলী, সুনু মিয়া, এটিএম তারেক আহমদ কয়েছে, আহমেদ জুনায়েদ দবির, প্রতাবুজ্জামান প্রতাব, আকরাম আলী রুবিজ, টিএম রায়হান, মাওলানা জিয়াউর রহমান, বুরহান উদ্দিন প্রমুখ।

সভায় বক্তারা বলেন, ঘটনার দিন পুলিশের উপস্থিতিতেই তারা প্রতিপক্ষের উপর গুলিবর্ষন করলেও এখন পর্যন্ত অবৈধ অস্ত্রধারীদের গ্রেফতার করতে পারছে না পুলিশ। তারা অভিলম্বে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, অস্ত্রধারীদের গ্রেফতারের দাবী জানান। সভার শুরুতে পবিত্র ক্বোরআন তেলাওয়াত করেন শিক্ষার্থী হাবিবুল বাশার।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx