নিউজটি পড়া হয়েছে 66

আগামীকাল ঢাকা আসছে বিমানের নতুন ড্রিমলাইনার বোয়িং-৭৮৭ হংসবলাকা

সিলনিউজ অনলাইনঃ আগামীকাল (১ ডিসেম্বর) ঢাকা আসছে বিমানের নতুন ড্রিমলাইনার বোয়িং-৭৮৭।যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটল থেকে চতুর্থ প্রজন্মের উড়োজাহাজ দ্বিতীয় ড্রিমলাইনার (বোয়িং-৭৮৭-হংসবলাকা) হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছাবে।

এয়ারক্রাফটি নিয়ে আজ (শুক্রবার) বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের জেনারেল ম্যানেজার (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজসহ প্রতিনিধি দলের সদস্যরা সিয়াটল থেকে দেশের উদ্দেশে রওনা হবেন।

শাকিল মেরাজ যাওয়ার আগে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং কর্তৃপক্ষ ২৯ নভেম্বর (গতকাল) বিমানের কাছে মালিকানা হস্তান্তর করবে। ৩০ নভেম্বর সকালে সিয়াটল থেকে তারা হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের উদ্দেশ্যে যাত্রা করবেন। যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটল শহরের পেনফিল্ড এয়ারপোর্ট থেকে সাড়ে ১৫ ঘণ্টা একটানা উড়ে স্বপ্নের ড্রিমলাইনার হংসবলাকা ঢাকায় আসবে।

গত ১৯ আগস্ট বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রথম ড্রিমলাইনার আকাশবীনা ঢাকায় আসে। সেটি দিয়ে প্রথমে মালয়েশিয়া-সিঙ্গাপুর রুটে ফাইট অপারেশন শুরু হয়। পরে স্বল্প দূরত্বের (সাড়ে ৫ ঘণ্টা) ঢাকা-কুয়েত ও ঢাকা-কাতার রুটে ফাইট পরিচালনা শুরু হয়েছে।

বলাকা ভবন সূত্রে জানা গেছে, দ্বিতীয় ড্রিমলাইনার বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যোগ হওয়ার পর লন্ডন, দাম্মাম ও ব্যাংকক রুটে ফাইট পরিচালিত হবে। আগামী ১০ ডিসেম্বর থেকে দু’টি ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ দিয়ে ঢাকা-লন্ডন-ঢাকা রুটে সপ্তাহের ছয় দিন, ঢাকা-দাম্মাম রুটে সপ্তাহে চারটি এবং ঢাকা-ব্যাংকক রুটে সপ্তাহে তিনটি করে ফাইট পরিচালনার পরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হয়।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও এ এম মোসাদ্দিক আহমেদ এ প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের জানান, বিমানের বহরে ড্রিমলাইনার (হংসবলাকা) যুক্ত হলে ফাইট ফ্রিকোয়েন্সির সংখ্যা বাড়বে। তিনি বলেন, বহরে ড্রিমলাইনার যুক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স নতুন মাইলফলক স্পর্শ করেছে।

গত ২৬ নভেম্বর বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের জেনারেল ম্যানেজার শাকিল মেরাজ যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন। প্রতিনিধিদলে বিমানের ফাইন্যান্স বিভাগের জেনারেল ম্যানেজার মঞ্জুর ইমাম, কাস্টমার সার্ভিস বিভাগের জেনারেল ম্যানেজার আতিক সোবহানসহ ফাইট অপারেশন, প্রকৌশল ও প্লানিং বিভাগের একাধিক কর্মকর্তা যুক্তরাষ্ট্রে গেছেন।

উল্লেখ্য, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ২০০৮ সালে মার্কিন বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং কোম্পানির কাছ থেকে ১০টি নতুন বিমান ক্রয় করার জন্য দুই দশমিক এক বিলিয়ন ইউএস ডলারে চুক্তি হয়। ইতোমধ্যে বহরে যুক্ত হয়েছে ছয়টি বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, দু’টি ৭৩৭-৮০০ এবং একটি বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার। বাকি তিন বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনারের মধ্যে দ্বিতীয় উড়োজাহাজ বহরে যুক্ত হওয়ার কথা রয়েছে ১ ডিসেম্বর।

সুত্রঃ এভিয়েশন নিউজ

ফেসবুক মন্তব্য
xxx