কোনো যুদ্ধাপরাধীকে ধানের শীষের মনোনয়ন দেয়া হবে না : বিএনপি

সিলনিউজ অনলাইন ডেস্কঃ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান নজরুল ইসলাম খান বলেছেন: কোনো চিহ্নিত যুদ্ধাপরাধীকে ধানের শীষের মনোনয়ন দেয়া হবে না।

এছাড়া জামায়াতের মধ্যে অনেকে মুক্তিযোদ্ধা রয়েছে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার নয়াপল্টনে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নে এমন মন্তব্য করেন নজরুল ইসলাম খান।

এর আগে বুধবার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন: ‘বিএনপি জঙ্গি- যুদ্ধাপরাধীদের মনোনয়ন দিচ্ছে’। এ বিষয়ে সাংবাদিকরা নজরুল ইসলাম খানকে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন: আমি আপনাদেরকে আশ্বস্ত করতে চাই যে, কোনো যুদ্ধাপরাধীকে আমরা মনোনয়ন দিব না। জামায়াতের মধ্যে অনেক মুক্তিযোদ্ধাও আছে।

বিএনপি নেতা হাবিব উন নবী খান সোহেল, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, আব্দুল আউয়াল মিন্টুরা মনোনয়ন পাওয়ার পরও কেন নির্বাচন করছেন না জানতে চাইলে নজরুল ইসলাম খান বলেন: আমাকে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান করা হলেও এখনো পুরো কমিটি গঠিত হয়নি। তাই এ বিষয়ে এখনো বলতে পারবো না৷

‘‘তবে এটি বলতে পারি যে, দলে সবাই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে না। কেউ থাকে নির্বাচন পরিচালনার জন্য প্রার্থীদের সহায়তার জন্য। এবার আমাদের নেত্রী আমাদের কাছে নেই । কারাগারে আছেন। সাধারণত উনিই প্রার্থীদের পক্ষে বক্তব্য দিতে যান। এখন এই কাজটি আমাদের অনেককে করতে হবে। তারা যদি সবাই নির্বাচনের প্রার্থী হয়ে যান তাহলে তো এই কাজটি করতে পারবেন না। কাজেই এসব নেতারা নিজেরা নির্বাচন করবেন না। কিন্তু অন্যদের সহযোগিতা করবেন।’’

কারাবন্দী হাবিব উন নবী খান সোহেল কিভাবে অন্যদের সহযোগিতা করবেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন: ‘তাকে অন্যায়ভাবে জেলে আটক রাখা হয়েছে৷ আমি বিশ্বাস করি, তিনি শিগগিরই মুক্ত হবেন এবং দলের জন্য কাজ করবেন।’

নজরুল ইসলাম খানের অভিযোগ: ২০১৪ সালের মতো জোর করে ক্ষমতায় যেতে সরকার অাইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে দিয়ে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ও নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা ও গ্রেপ্তার করছে।

তিনি বলেন: এ পরিস্থিতি সুষ্ঠু নির্বাচনের পথে বিরাট বাধা। সুষ্ঠু নির্বাচন হতে সরকার পদে পদে বাধা সৃষ্টি করছে। অার নির্বাচন কমিশন সরকারকে সহায়তা করছে।

বিএনপির এই নেতার দাবি: বিএনপিকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখতেই নেতাকর্মীদের হামলা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। বিএনপি নেতারা যাতে নির্বাচনে না যেতে পারে সেজন্য উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে মামলা দিচ্ছে।

বিএনপির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান বলেন: মনোনয়ন প্রত্যাহারের পূর্বেই যোগ্য নেতাদেরকে মনোনয়ন দিবে বিএনপি। প্রতীক বরাদ্দের পরই বুঝা যাবে বিএনপি শরীক দলদের কতোটি অাসন ছাড়ছে।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx