সৈয়দ আশরাফের মনোনয়নপত্রে সই আনতে ব্যাংককে তার ভাই-বোন

সিলনিউজ অনলাইন ডেস্কঃ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের মনোনয়নপত্রে তার সই আনতে সোমবার সকালে ব্যাংকক গেছেন তার ভাই ড. সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম ও বোন ডা. সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি।

রওনা হওয়ার আগে গণমাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে কিশোরগঞ্জসহ দেশবাসীর দোয়া চেয়েছে সৈয়দ আশরাফের পরিবার।

মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশের অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলামের বড় ছেলে সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। ছাত্রজীবনে ছাত্রলীগকে নেতৃত্ব দেয়া সৈয়দ আশরাফ ’৯৬ সালে প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।

এক এগারোর সংকটে শক্ত হাতে দলের হাল ধরেন তিনি। এরপর দলের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন পর পর দু’বার। ২০০৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর প্রথমে স্থানীয় সরকার ও পরে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে দায়িত্ব পালন করেন।

গত বছরের অক্টোবরে স্ত্রীর মৃত্যুর পর নিজেও অসুস্থ হয়ে ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন সৈয়দ আশরাফ। মার্চে দেশে ফেরার পর জুনে আবার অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপালে ভর্তি করা হয়। সেই থেকে বামরুনগ্রাদের ডাক্তারদের নিবিড় পর্যবেক্ষণে চিকিৎসা নিচ্ছেন তিনি।

 

এর মধ্যে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হলে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সৈয়দ আশরাফের পক্ষে তার ভাই-বোনেরা দলের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন। সোমবার কিশোরগঞ্জ-১, সদর-হোসেনপুর আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পান সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম।

আনুষ্ঠানিকভাবে প্রার্থিতার জন্য মনোনয়নপত্রে সই আনতে সকালে সৈয়দ আশরাফের ২১ বেইলি রোডের সরকারি বাসা থেকে ব্যাংককের উদ্দেশে রওনা হন তার ভাই ড. সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম ও বোন ডা. সৈয়দা জাকিয়া নূর লিপি। সেসময় ভাইয়ের নির্বাচনে অংশ নেয়া নিয়ে কথা বলেন তারা।

ব্যাংককের হাসপাতালে সৈয়দ আশরাফ কেমন আছেন সেটাও জানায় সৈয়দ আশরাফের পরিবার।

মঙ্গলবার ব্যাংকক থেকে ফিরে বুধবার দলীয় নেতা-কর্মীদেরসহ সৈয়দ আশরাফের পক্ষে মনোনয়নপত্র জমা দিতে কিশোরগঞ্জ যাবে তার পরিবার।

সূত্রঃ চ্যানেল আই

ফেসবুক মন্তব্য
xxx