লন্ডন রুটে ড্রিমলাইনার

সিলনিউজ অনলাইন ডেস্কঃ পহেলা ডিসেম্বর বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হচ্ছে দ্বিতীয় বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনার। অত্যাধুনিক দুটি ড্রিমলাইনার দিয়ে এবার লন্ডন রুটে ফ্লাইট চালাবে বিমান। সেই সঙ্গে বাড়ানো হচ্ছে দুটি ফ্লাইট। এছাড়া মধ্যপ্রোচ্যর গুরুত্বপূর্ণ রুট সৌদি আরবের দাম্মাম ও পর্যটন গন্তব্য ব্যাংককেও যাবে ড্রিমলাইনার। লন্ডন ও মধ্যপ্রাচ্যে ড্রিমলাইনার চালানোকে ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখছেন বিশ্লেষকরা। তবে স্বল্প দূরত্বের রুট ব্যাংককে এটি চললে খুব দ্রুত এই উড়োজাহাজের লাইফ টাইম ফুরিয়ে যাবে বলে মনে করেন তারা। 

আকাশ বীণার পর পহেলা ডিসেম্বরে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হচ্ছে আরো একটি ড্রিমলাইনার। নতুন এই উড়োজাহাজের নাম দেয়া হয়েছে ‘হংসবলাকা’। ইউরোপে বিমানের একমাত্র গন্তব্য ঢাকা-লন্ডন রুটে বর্তমানে চলে বোয়িং ত্রিপল সেভেন উড়োজাহাজ। সপ্তাহে চারটি ফ্লাইট যায় লন্ডনে। তবে, ১০ ডিসেম্বর থেকে দুটি ড্রিমলাইনার দিয়ে এই রুটে সপ্তাহে ছয়টি ফ্লাইট চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিমান। এছাড়া দাম্মাম ও ব্যাংককেও চলবে ড্রিমলাইনার।

জিএফএক্স- লন্ডন থেকে ফেরার সময় পাঁচটি সিলেট হয়ে আসলেও একটি যাবে ঢাকা থেকে লন্ডন সরাসরি। চলবে বিরতিহীন

শকিল মেরাজ, জিএম, বিমান বলেন, এই উড়োজাহাজটি দূর পাল্লার উড্ডয়নের জন্য অত্যন্ত যোগ্য একটি বাহন।

বিশ্লেষকরা বলছেন, দুরত্বের হিসেবে লন্ডন রুটে ড্রিমলাইনার যথোপযুক্ত। তবে মাত্র দুই ঘন্টার দূরত্ব ব্যাংককে ড্রিমলাইনার চালানো বিমানের ভুল সিদ্ধান্ত।

নাফিস ইমতিয়ায , সাবেক পরিচালক, বিমান বলেন, ড্রিমলাইনার নেয়াই হয়েছে যেন তার ইমেজটা বিমান ব্যবহার করে, অভিজাত প্যাসেঞ্জারদেরকে বিজনেস ক্লাসে টানতে পারে। ব্যাংককে যদি ল্যান্ড করে তাহলে এতবড় একটা বিমান ২ ঘণ্টা ফ্লাই করে নামছে। এতে করে এয়ারক্রাফটের লাইফ কমে যাচ্ছে।

লন্ডন রুটে ড্রিমলাইনারের সংযোজন ও সপ্তাহে একটি ফ্লাইট লন্ডন – ঢাকা সরাসরি পরিচালনার সিদ্ধান্তে খুশি লন্ডন প্রবাসীরা।

২৬টি এয়ারলাইন্সের মধ্যে একমাত্র বিমান বাংলাদেশ থেকে সরাসরি লন্ডনে ফ্লাইট পরিচালনা করে। ওসমানী অন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের রানওয়ে সম্প্রসারণসহ আনুসাঙ্গিক সুবিধা নিশ্চিত হলে সিলেট থেকেও লন্ডনে সরাসরি ফ্লাইট পরিচালনার পরিকল্পনা রয়েছে বিমানের।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx