নিউজটি পড়া হয়েছে 89

নবীগঞ্জের আউশকান্দি র,প উচ্চ বিদ্যালয়ে অনিয়মের অভিযোগ, অভিভাবকদের প্রতিবাদ সভা।

নবীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি র,প, উচ্চ বিদ্যালয়ের জেএসসি পরিক্ষার্থী রোহেনা বেগম নামের ছাত্রীর রোল নং পিছিয়ে অত্র প্রতিষ্টানের অভিভাবক প্রতিনিধির মেয়েকে উক্ত নাম্বার দেওয়ার ঘটনায় এলাকায় অভিভাবকসহ সচেতন মহলের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। প্রতিবাদ সভায় ৫ দিনের আল্টিমেটাম দিয়েছেন সচেতন মহলের লোকজন।

জানা যায় উপজেলার দীঘলবাক ইউনিয়নের রঘু দাউদপুর গ্রামের দিনমজুর নুরুল ইসলামের কন্যা ও আউশকান্দি র,প উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী জেএসসি পরিক্ষার্থী রোহেনা বেগমের শ্রেণী রোল নং (২০) ছিল, কিন্তু প্রবেশ পত্রতে অনিয়ম, দূর্ণীতি করে ১৬৫ এনে রেজিষ্টেশন করা হয়।

অভিযোগে উল্লেখ, গোপলার বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও আউশকান্দি স্কুল এন্ড কলেজের অভিভাবক প্রতিনিধি তফাজ্জূল হকের মেয়ের শ্রেণী রোল নং ছিল ৮৪ , তবে এই রোল নং পরিবর্তন করে ক্ষমতার অপব্যবহার করে বর্তমানে রোল নং ২০ নাম্বারে এনে পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করে প্রভাবশালী তফাজ্জূল হকের মেয়ে।

অনিয়ম এবং দূর্ণীতির মাধ্যমে ৮৪ নং রোল নাম্বারের ছাত্রীর রোল নং ২০ নাম্বারে স্থানান্তর করে প্রকৃত শ্রেণী রোল নং ২০ এর ছাত্রী দিনমজুরের কন্যা রোহেনা বেগমের প্রবেশপত্রে ১৬৫ নাম্বার দিয়ে রেজিষ্টেশন করা হয়। এদিকে অভিভাবক প্রতিনিধি তোফাজ্জুল হকের দুই কন্যা একই ক্লাসের ছাত্রী ও জেএসসি পরিক্ষার্থী হওয়াতে তাদের রোল নং পাশাপাশি উনিশ/বিশ করে দেয়া হয়। এ বিষয়ে স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ লুৎফর রহমানের নিকট হয়রানীর শিকার রোহেনার পিতা বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি তাঁকে উল্টো হুমকি ধামকি দেন বলেও অভিযোগ ওঠে।

সম্প্রতি এই ঘটনায় দিনমজুর নুরুল ইসলাম স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদেরকে নিয়ে স্কুল প্রধান শিক্ষকসহ গভর্নিং বডির সভাপতি ও কমিটির প্রতিনিধিদের নিকট বিচারপ্রার্থী হলে উনারা বিষয়টি সমাদান করতে পারবেন না মর্মে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার পরামর্শ দেন তারা।

উক্ত ঘটনায় অত্র প্রতিষ্টানের প্রধান শিক্ষক বলেন এই বিষয়ে আমাদের কিছু করার নেই, যাহা কিছু হয়েছে সেটা শিক্ষাবোর্ডের কাজ, এর বেশি কিছু বলতে তিনি নারাজ। অবশেষে এই ঘটনায় নিরুপায় হয়ে গত ১ নভেম্বর হয়রানীর শিকার স্কুলছাত্রী রোহেনার পিতা মোঃ নুরুল ইসলাম বাদী হয়ে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এই আলোচিত ও সমালোচিত ঘটনায় অভিভাবক সহ সচেতন মহলের মধ্যে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে, দেখা দেয় চাপা ক্ষোভ ও চরম উত্তেজনা। এরই ধারাবাহিকতায় আজ (সোমবার) বিকেলে এলাকার সচেতন মহলের আহবানে এলাকায় মাইকিং করে আউশকান্দি হীরাগঞ্জ মধ্যবাজারস্থ এক বিশাল প্রতিবাদ সভা অনুষ্টিত হয়। এতে অংশ গ্রহণ করেন অভিভাবকসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

এসময় বক্তব্য রাখেন এলাকার বিশিষ্ট মুরব্বি ও অত্র প্রতিষ্টানের গভাণিং বডির সাবেক সভাপতি হাজী আতাউর রহমান, হাজী সিরাজ মিয়া, হাজী শাহনূর মিয়া, আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা হাজী মোঃ আব্দুর রউপ, শ্রমিক নেতা তজমুল হক, দিলশাদ মিয়া, খালিছ মিয়া, কাছন মিয়া, আঃ আহাদ, মহসিন আহমেদ, মাওলানা মোশাহিদ আলী, ফকির ফজলু মিয়া, জয়নাল আবেদীন, মোঃ লেবু মিয়া, সাংবাদিক এম মুজিবুর রহমান, ইউপি সদস্য ফখরুল ইসলাম জুয়েল, নুনু মিয়াসহ আরো অনেকে।

এতে উপস্থিত ছিলেন এলাকার সহস্রাধিক জনতাসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৌহিদ বিন হাসান এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি অভিযোগ পেয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশ দিয়েছি।

অপরদিকে প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন, যদি ৫ দিনের মধ্যে এই বিষয়টি সুরাহা না করা হয় পরবর্তীতে এলাকার সর্বস্তরের মানুষকে সাথে নিয়ে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারী দেন।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx