নি:সন্তান দম্পতিদের আধুনিক চিকিৎসা পদ্ধতি’ শীর্ষক বৈজ্ঞানিক সেমিনার

সিলনিউজ২৪.কমঃ ভারতের চেন্নাই অ্যাপোলো হাসাপাতাল-এর বিশিষ্ট গাইনি ও ইনফারটিলিটি বিশেষজ্ঞ ডা. ভিনুথা অরুনাচালাম বলেছেন, নি:সন্তান দম্পেিতর চিকিৎসা পদ্ধতি এখন বিশ্বে অনেক উন্নত হয়েছে। আইইউআই এবং আইভিএফ এর মাধ্যমে এখন বন্ধ্যা দম্পতি গণের বাচ্চা নেওয়ার সাফল্য এখন অনেক বেশি। অ্যাপোলো হাসপাতাল চেন্নাইয়ে খুবই আপডেটেড ইনফারটিলিটি সেন্টার রয়েছে।

গতকাল রোববার (২৮ অক্টোবর) মেডিকেয়ার মেডিকেল সার্ভিসেস এবং অ্যাপোলো হাসপাতাল চেন্নাই-এর যৌথ উদ্যোগে ‘নি:সন্তান দম্পতিদের আধুনিক চিকিৎসা পদ্ধতি’ শীর্ষক বৈজ্ঞানিক সেমিনারে কী-নোট স্পীকারের বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

মেডিকেয়ার মেডিকেল সার্ভিসেস-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. মাহমুদুল মজিদ চৌধুরী শাহিনের সঞ্চালনায় নিজস্ব হলরুমে অনুষ্ঠিত বৈজ্ঞানিক সেমিনারে প্যানেল স্পিকার হিসেবে বক্তব্য রাখেন পার্কভিউ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল-এর গাইনী বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. দিলীপ কুমার ভৌমিক, নর্থ ইস্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গাইনি বিভাগের অধ্যাপক ডা. নাহিদ এলোরা, সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজের গাইনি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. কিশোয়ার পারভীন।

স্বাগত বক্তব্যে মেডিকেয়ার মেডিকেল সার্ভিসেস এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. মাহমুদুল মজিদ চৌধুরী শাহিন বলেন, সিলেটে একটি ইনফারটিলিটি সেন্টার প্রতিষ্ঠার প্রয়োজন রয়েছে। এসময় তিনি সেন্টার প্রতিষ্ঠায় অ্যাপোলো হাসপাতাল চেন্নাইয়ের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন। পার্কভিউ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল-এর গাইনী বিভাগের অধ্যাপক ডা. দিলীপ কুমার ভৌমিক নি:সন্তান দম্পতিদের আধুনিক চিকিৎসা পদ্ধতি শীর্ষক বৈজ্ঞানিক সেমিনারের আয়োজন করায় সেন্টারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. মাহমুদুল মজিদ চৌধুরী শাহিনকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান অন্যান্য বক্তারা সিলেটে একটি ইনফারটিলিটি সেন্টার প্রতিষ্ঠার প্রয়োজনীয়তা উল্লেখ করে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন। এছাড়া সিলেটের বিশেষজ্ঞ স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশ নেন। অনুষ্ঠানের শেষে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন মেডিকেয়ার মেডিকেল সার্ভিসেস- এর পরিচালক ডা. শাদমান সাকিব। সেমিনারে চেন্নাই অ্যাপোলো হাসপাতাল থেকে উপস্থিত ছিলেন সেন্টার কো-অর্ডিনেটর জান্নাতুন নাঈম, এক্সিকিউটিভ সুমিনা, ডা. শামসুন্নাহার বেগম, ডা. রাবেয়া বেগম, ডা. শাহীনা আক্তার সীমা, ডা. নাতিয়া রহমান, ডা. দিপু দাস, ডা. রোকসানা বেগম, ডা. হোমায়রা বেগমসহ সিলেটের বিভিন্ন সরকারি, বেসরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের স্ত্রী ও প্রসূতি রোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকবৃন্দ অংশ গ্রহণ করেন।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx