আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে গোপলার বাজার বাসস্ট্যান্ডে বিল্ডিং নির্মানের অভিযোগ, এলাকায় উত্তেজনা।

নবীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের নবীগঞ্জ উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নের গোপলার বাজার বাসস্ট্যান্ডের নিকটে স্থানীয় একদল প্রভাবশালী কর্তৃক অসহায় লোকদের জায়গা/জমি জবরদখল ও আদালতের নির্দেশ অমান্য করে পাকা দু’তলা বিল্ডিং নির্মানের গুরুতর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এঘটনায় যেকোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা করছেন স্থানীয়রা। এনিয়ে এলাকায় টানটান উত্তজনা বিরাজ করছে

জানা যায়,উপজেলার দেবপাড়া ইউনিয়নের নোয়াগাঁও গ্রামের ধনাই মিয়ার পুত্র গিয়াস উদ্দীন গংরা স্থানীয় সাংবাদিকদের নিকট অভিযোগ করে বলেন, উপজেলার দেবপাড়া ইউপি’র জালাল সাপ মৌজাধীন জে এল নং ১৩৫, এস,এ খতিয়ান -১৫, আর এস খতিয়ান নং -২৭৫, এস,এ দাগ নং ১০০২,আর এস দাগ নং -৯০৪, এতে ৪ শতক আমন রকম ভূমি তাদের মালিকানাধীন। উল্লেখিত জায়গা জোরপূর্বক জবর দখল করে একই ইউপি’র বৈঠাখাল গ্রামের রহমত উল্লার পুত্র প্রভাবশালী ইব্রাহীম মিয়াসহ তাদের লোকজন ভাড়াটিয়া লোক সংগ্রহ করে তাদের ফসলি জমি দখল করে পাকাঘর বিল্ডিং নির্মান করার পায়তারা করছেন।

এ ঘটনায় গত ২২ অক্টোবর বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এর আদালত হবিগঞ্জে জবর দখলকারী ইব্রাহীমের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করলে বিজ্ঞ আদালত উক্ত মামলাটি আমলে নিয়ে বিরোধপূর্ণ ভূমিতে ফৌজধারী কার্যবিধি এর ১৪৪ ধারা জারি করে অফিসার ইনচার্জ নবীগঞ্জ থানাকে শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষা করা এবং স্থিতাবস্থা বজায় রাখাসহ ২য় পক্ষকে কারন দর্শানোর নির্দেশ দেয়া হয়।

বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশের প্রেক্ষিতে নবীগঞ্জ থানার এস আই সামছুল ইসলাম আজ ২৪ অক্টোবর (বুধবার) দুপুরে উভয় পক্ষকে নোটিশের মাধ্যমে শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখার নির্দেশ দিলেও প্রভাবশালী ইব্রাহীম মিয়া গংরা পুলিশ চলে যাবার সাথে সাথেই আবারো ভাড়াটিয়া শ্রমিক নিয়ে জোরপূর্বক বিল্ডিং নির্মানে মরিয়া হয়ে উঠেন।

এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ থানার এস,আই সামছুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমরা বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশের প্রেক্ষিতে উভয় পক্ষকে নোটিশের মাধ্যমে শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখতে বলা হলেও ২য় পক্ষ কর্তৃক আবারো বিরোধপূর্ণ ভুমিতে কাজের অভিযোগ পেয়ে তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে পৌছলে অভিযুক্ত কাউকে পাওয়া যায়নি। যদি কেহ বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশ অমান্য করেন তবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx