দিরাই-শাল্লার জনগণ নৌকার নতুন মুখ চায়

শাল্লা প্রতিনিধিঃ সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার ৪নং শাল্লা ইউনিয়নের সাতপাড়া বাজারে তৃণমূল আওয়ামীলীগের আয়োজনে ২০ অক্টোবর( শনিবার ) আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে সুনামগঞ্জ-২ দিরাই-শাল্লা আসনে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী চার নতুন মুখ।
সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও শাল্লা উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট অবনী মোহন দাস, সিলেট মহানগর আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক এ্যাডভোকেট সামছুল ইসলাম, সিলেট এমসি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের সাবেক ভিপি ইকবাল হোসেন, যুক্তরাজ্য শ্রমিক লীগের সভাপতি সামছুল হক চৌধুরী এই চার জন সম্মেলিত ভাবে  সাতপাড়া বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সভাপতি ডাঃ নগেন্দ্র চন্দ্র সরকারের সভাপতিত্বে এবং যুবলীগ নেতা মোঃ আসাদুজ্জামান আসাদ ও রফিকুল ইসলাম রফিকের যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন।
বক্তাগণ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ  হাসিনার নেতৃত্বে সারা দেশে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বিদ্যুৎ, যোগাযোগ, তত্ত্ব প্রযুক্তি, সহ নানাবিধ উন্নয়ন করা হয়েছে উল্লেখ করে বিস্তর বক্তব্য রাখেন এবং অবহেলিত দিরাই-শাল্লার উন্নয়নে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সুনামগঞ্জ-২ দিরাই-শাল্লা আসনের বর্তমান সংসদ সদস্যকে বয়স্ক উল্লেখ করে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করতে আওয়ামীলীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিকট নতুন মুখের প্রার্থীর দাবী জানান।
সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য আবু আব্দুল্লাহ চৌধুরী মাসুদ, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের উপ-প্রচার সম্পাদক হুমায়ুন রশীদ লাভলু, শাল্লা উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য মোঃ সুলেমান মিয়া, সাতপাড়া বাজার কমিটির সভাপতি মোঃ মজিবুর রহমান, সিলেট জেলা যুবলীগের সদস্য জহিরুল ইসলাম জুয়েল, জগদল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ইশতিয়াক হোসেন মঞ্জু, সুনামগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোরশেদ আলম, সাধারণ সম্পাদক বঙ্গবন্ধু একাডেমি সিলেট মহানগর রেদওয়ান মাহমুদ চৌধুরী, দিরাই উপজেলা যুবলীগ নেতা বিনিয়ামিন রাসেল, আটগাওঁ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আমীর হামজা, মাহবুবুল আলম সোহেল, উমর ফারুক, জাহাঙ্গীর চৌধুরী রিফাত, রফিকুল ইসলাম।
এছাড়া সভায় তৃণমূল পর্যায়ের আওয়ামীলীগের বিভিন্ন নেতা কর্মীগণ উপস্থিত ছিলেন।
অন্যদিকে গত উপ নির্বাচনে সিংহ মার্কা নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বি কারী প্রার্থী মাহবুব হোসেন রেজু ও এবার নৌকা মার্কায় মনোনয়ন পাওয়ার আশায় মাঠে কাজ করে যাচ্ছেন।
ফেসবুক মন্তব্য
xxx