আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ চট্টগ্রামে নানাবাড়িতে

সিলনিউজ২৪.কমঃ আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ চট্টগ্রামে পৌঁছেছে। আজ শনিবার (২০ অক্টোবর) সকাল পৌনে ১১টার দিকে ইউএস বাংলার একটি ফ্লাইটে সকাল শাহ আমানত বিমানবন্দরে  নিয়ে যাওয়া হয় তাকে।। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বিমানবন্দরে আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ গ্রহণ করেন।সেখান থেকে মরদেহ নিয়ে তার নানার বাড়িতে। বেলা ১২টার দিকে তার মরদেহ নানার বাড়িতে পৌঁছায়। 

মরদেহ নিয়ে নানান বাড়িতে পৌঁছার পর চসিক মেয়র বলেন, আইয়ুব বাচ্চুর নামে চট্টগ্রাম মুসলিম হলের নামকরণের চেষ্টা করবেন তিনি। পাশাপাশি সিটি করপোরেশন এলাকায় একটি সড়কের নামকরণেরও আশ্বাস দেন তিনি। মেয়র জানান, সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে তারা আইয়ুব বাচ্চুকে নাগরিক সংবর্ধনা দেবেন।

আইয়ুব বাচ্চুর ছেলে আহনাব তাজোয়ার দেশবাসীর কাছে তার বাবার জন্য দোয়া চেয়েছেন।

এদিকে স্থানীরা প্রিয় সংগীত শিল্পীকে শেষবারের মতো এক নজর দেখতে তার নানা বাড়িতে  ভিড় জমাচ্ছেন। সকাল থেকেই সেখানে জড়ো হয়েছেন ভক্তরা।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (১৮ অক্টোবর) সকালে ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেছেন গুণী এই শিল্পী। তার বয়স হয়েছিল ৫৬ বছর। পারিবারিক সূত্র জানায়, গত ১৬ অক্টোবর রাতে রংপুরে একটি কনসার্ট শেষ করে ১৭ অক্টোবর দুপুরে ঢাকায় ফেরেন আইয়ুব বাচ্চু। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বাসায় হার্ট অ্যাটাক করেন তিনি। তড়িঘড়ি তাকে স্কয়ার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সকাল ৯টা ৫৫ মিনিটের দিকে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।.

২০১২ সালের ২৭ নভেম্বর ফুসফুসে পানি জমার কারণে স্কয়ার হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) ভর্তি হয়েছিলেন আইয়ুব বাচ্চু। বেশ কিছু দিন চিকিৎসার পর তিনি সুস্থ হয়ে আবারও গানে ফেরেন।

দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যান্ড এলআরবির দলনেতা আইয়ুব বাচ্চু ছিলেন একাধারে গায়ক, গিটারিস্ট, গীতিকার, সুরকার, সংগীত পরিচালক। গিটারের জাদুকর হিসেবে আলাদা সুনাম ছিল তার। ভক্তদের কাছে তিনি ‘এবি’ নামেও পরিচিত। আইয়ুব বাচ্চুর নিজের একটি স্টুডিও আছে। ঢাকার মগবাজারে অবস্থিত এই মিউজিক স্টুডিওটির নাম এবি কিচেন।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx