নিউজটি পড়া হয়েছে 72

বাংলাদেশকে থামিয়ে দিল ফিলিস্তিন।

 সিলনিউজ অনলাইন ডেস্কঃ  নাবীব নেওয়াজ জীবন ওটা কী করলেন! ফাঁকা পোস্ট পেয়েও বলটা জালে রাখতে পারলেন না। পুরো ম্যাচের প্রতীক হয়ে থাকল জীবনের ওই সহজ সুযোগ হাতছাড়া করার দৃশ্যটি। যার মাশুল গুনতে হলো বাংলাদেশকে। কক্সবাজারে সেমির লড়াইয়ে ফিলিস্তিনের বিপক্ষে ২-০ গোলে হেরে বাংলাদেশ এখন নিজেদের টুর্নামেন্টের দর্শক। ১২ অক্টোবর ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শিরোপার লড়াইয়ে নামবে তাজিকিস্তান ও ফিলিস্তিন।

র‍্যাঙ্কিংয়ে ফিলিস্তিনের অবস্থান ১০০ আর বাংলাদেশ ১৯৩। কিন্তু খেলা দেখে মনেই হয়নি দুটি অসম শক্তির দল একে অন্যের মুখোমুখি। পুরো ম্যাচেই শারীরিকভাবে শক্তিশালী ফিলিস্তিনিদের বিপক্ষে চোখে চোখ রেখেছে খেলেছেন জামাল ভূঁইয়ারা। কিন্তু জিততে হলে যে গোল করতে হয়, সেটিই আবারও বুঝলেন খেলোয়াড়েরা। ম্যাচের শুরুতে গোল হজম করে বেশ কয়েকবার ম্যাচে ফিরে আসার সুযোগ পেয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু জীবন, সুফিলরা সুযোগগুলো কাজে লাগাতে পারেননি। গোল শোধে মরিয়া হয়ে অলআউট খেলে উল্টো ম্যাচের শেষ দিকে একটি গোল হজম করতে হয়েছে বাংলাদেশকে।

শুরুতেই বাংলাদেশের ওপরে বেশ চড়াও হয়েছিল ফিলিস্তিন। গোলরক্ষক আশরাফুল রানা দুটি ভালো সেভ না করতে পারলে তো তখনই ম্যাচ শেষ হয়ে যায়। কিন্তু অষ্টম মিনিটে আর পারেননি রানা। ডান প্রান্ত থেকে উড়ে আসা ক্রসে দূরের পোস্টে হেড করে গোল করেন বালাহ। বিরতিতে যাওয়ার আগে সেই গোল পরিশোধ করার সবচেয়ে ভালো সুযোগ পেয়েছিলেন জীবন। কিন্তু গোলপোস্ট ফাঁকা পেয়েও বল জালে জড়াতে পারেনি। দ্বিতীয়ার্ধেও বেশ কয়েকটি সুযোগ তৈরি করেছিল স্বাগতিকেরা। কিন্তু তা সুযোগই হয়ে থাকল। উল্টো ৯৩ মিনিটে ব্যবধান ২-০ করেছেন সামেহ।

এই নিয়ে টানা দ্বিতীয়বার বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিল বাংলাদেশ। এর আগে ২০১৬ সালে বাহরাইন যুব দলের বিপক্ষে হেরে ফাইনালে খেলার স্বপ্ন ভেঙেছিল জামালদের।
বাংলাদেশ দল: আশরাফুল রানা, তপু বর্মণ, টুটুল হোসেন বাদশা, বিশ্বনাথ ঘোষ, ওয়ালি ফয়সাল (রহমত মিয়া), জামাল ভূঁইয়া, মাসুক মিয়া জনি, ইমন মাহমুদ বাবু (রবিউল হাসান), বিপলু আহমেদ (তৌহিদুল আলম সবুজ), মাহবুবুর রহমান সুফিল, নাবীব নেওয়াজ জীবন

ফেসবুক মন্তব্য
xxx