নিউজটি পড়া হয়েছে 58

শর্ত ভেঙে বিএনপির সমাবেশ।

সিলনিউজ অনলাইনঃ রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে চলছে বিএনপির সমাবেশ চলছে। সকাল থেকেই ঢাকার আশপাশ থেকে আসতে শুরু করেন নেতাকর্মীরা। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার ব্যবস্থাসহ বিএনপি’র পক্ষ থেকে ৫ দফা দাবি তুলে ধরার কথা রয়েছে জনসভায়। এ সমাবেশ করার জন্য বিএনপিকে ২২টি শর্ত দিয়েছিল ডিএমপি। কিন্তু দেখা গেছে, এই ২২ শর্তের মধ্যে বেশ কয়েকটি শর্ত ভেঙেছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা।

ডিএমপির ১৯ নম্বর শর্ত ছিল সমাবেশে কোনো ধরনের লাঠিসোটা বা ব্যানার আনা যাবে না। এছাড়া ব্যানার বা ফেস্টুন বহনের অজুহাতে কোনো রকমের লাঠি, রড ব্যবহার করা যাবে না। কিন্তু এই শর্ত ভেঙে বিএনপি কর্মীরা আঁটি বাঁধা বাঁশের লাঠি এবং ব্যানার হাতে আসতে দেখা গেছে।

৫ নম্বর শর্ত অনুযায়ী সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের অভ্যন্তরে জনসভার কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রাখার কথা বলা হলেও বিএনপির অধিকাংশ সমর্থক উদ্যানের বাইরে ও রমনা পার্কের ভেতরে জড়ো হয়েছেন।

এছাড়া ১৩ নম্বর শর্তে অনুমোদিত স্থানের বাইরে ফুটপাতে লোক সমাগম করা যাবে না। কিন্তু বিএনপির সমর্থকরা শাহবাগ, মৎসভবন, ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউট, রমনা পার্ক এলাকার সড়ক ও ফুটপাথে অবস্থান নিয়েছেন।

১৮ নং শর্ত অনুযায়ী অনুমোদিত সময়ের পূর্বে কিংবা পরে রাস্তায় কোনো অবস্থাতেই সমবেত হওয়া যাবে না ও যান চলাচলে কোনো প্রকার প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা যাবে না। ২০ নম্বরে মিছিল করে সমাবেশে আসা যাবে না বলে উল্লেখ করা হলেও সেটিও মানা হচ্ছে না।

উল্লেখ্য, রোববার সকাল থেকেই ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে সভাস্থলে আসতে শুরু করেন তৃণমূলের নেতাকর্মীরা। ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপির পাশাপাশি রাজধানীর আশপাশের জেলা থেকেও আসছেন নেতাকর্মীরা। দুই দফা পেছানোর পর গতকাল বিএনপিকে ২২ শর্তে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি দেয় পুলিশ। নির্বাচনের আগে সমাবেশের মধ্যদিয়ে আন্দোলন ও নির্বাচন নিয়ে দেশি-বিদেশি সব মহলে বার্তা দিতে চাইছে দলটি।

এছাড়া, এ সমাবেশ থেকে তফসিল ঘোষণার আগেই সংসদ ভেঙে দেয়া, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, নির্বাচনে সেনা মোতায়েন, ইভিএম ব্যবহার না করাসহ বেশ কয়েকটি দাবি তুলে ধরারও ইঙ্গিত দিয়েছেন বিএনপি নেতারা।

সূত্রঃ সময় টিভি 

ফেসবুক মন্তব্য
xxx