ইনাতগঞ্জ-আলীগঞ্জে অটোরিকশা টমটম শ্রমিকদের সংঘর্ষ, আহত অর্ধশতাধিক।

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ পূর্ব বাজার সংলগ্ন আলীগঞ্জ, ইনাতগঞ্জ ও কসবা সিএনজি অটোরিকশা টমটম শ্রমিকের মধ্যে শুক্রবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বিকালে এক ভয়াবহ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের অর্ধশতাধীক লোক আহত হয়েছে। গুরুতর আহত জগন্নাথপুর উপজেলার পাইলগাঁও ইউনিয়নের আলীপুর গ্রামের শানুর খান (৩৫), জাহাঙ্গীর খান (৩২) ও জালালপুর গ্রামের আছদ উল্লাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তী করা হয়েছে। অন্য আহতদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউনিয়ন ও দীঘলবাক ইউনিয়নের কসবা গ্রামের টমটম শ্রমিকরা আলীগঞ্জের এক টমটম শ্রমিকের উপর যাত্রী উঠানো নিয়ে মারধর করে। এরপর আলীগঞ্জের টমটম শ্রমিকরা কসবা গ্রামের টমটম শ্রমিক লিটনকে মারধর করে। এঘটনার একপর্যায়ে ইনাতগঞ্জ ও দীঘলবাক ইউনিয়নের শ্রমিকসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আলীগঞ্জ বাজারে আসলে উভয় পক্ষের মধ্য শুরু হয় সংঘর্ষ।

ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্রসহ ইটপাটকেল ব্যবহৃত হয়। এ সময় আলীগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষের মধ্যে আতংক সৃষ্টি হয়। লোকজন ভয়ে দিগ্ববিদ্বিগ ছুটাছুটি করতে থাকে। এক পর্যায়ে আলীগঞ্জের শ্রমিকরা পিছু হটলে শুরু হয় তাদের উপর হামলা।

হামলার একপর্যায়ে আলীগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী শবকদর খান ও ফয়েজ খানের দোকানের সাটার ভাংচুর করা হয়। সংঘর্ষের খবর পেয়ে ইনাতগঞ্জ ফাঁড়ী পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনে। সংঘর্ষের ঘটনার পর নবীগঞ্জের দীঘলবাক, ইনাতগঞ্জ ও পাইলগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যানসহ উভয় এলাকার বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ বিষয়টি মিমাংসা করার চেষ্ঠা করছেন। 

ইনাতগঞ্জ পুলিশ ফাড়ির এসআই এমরান হোসেন বলেন,খবর পেয়ে ঘটনা স্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করি। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx