অভিনয়ের জন্য আবেদন করলেন অর্থমন্ত্রী!

সিলনিউজ বিনোদন ডেস্কঃ  ‘আগে আমাদের চলচ্চিত্রের অবস্থা অনেক ভালো ছিল, এখন আমাদের বসার জায়গা নেই। এমন অবস্থায় আমরা আর কত দিন দাঁড়িয়ে থাকব?’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করার জন্য ফরম পূরণ করে এমন প্রশ্নের মুখোমুখি হলেন একজন প্রতিযোগী। প্রশ্নটি করেন বিচারকের আসনে থাকা নায়িকা চম্পা। একই প্রতিযোগীকে উপস্থাপনার দায়িত্বে থাকা জয় প্রশ্ন করেন, ‘এই বয়সে আপনি নায়ক হলে, নায়িকা পাওয়া তো মুশকিল হয়ে যাবে স্যার?’ সেই প্রতিযোগী আর কেউ নন, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি গতকাল ‘নতুন মুখের সন্ধানে’ গিয়ে প্রতীকীভাবে প্রতিযোগিতার ফরম পূরণ করেন। সেসময় উপস্থিত ছিলেন তিন বিচারক নায়ক আলমগীর, অভিনেত্রী চম্পা ও জয়া আহসান। এর মধ্য দিয়েই গতকাল রোববার আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয় ‘নতুন মুখের সন্ধানে-২০১৮’। চলচ্চিত্রে শিল্পী সংকট দূর করতেই এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, তথ্য সচিব এম এ মালেক ও সংস্কৃতি সচিব নাসির উদ্দিন আহমেদ। মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন নায়ক আলমগীর ও মুশফিকুর রহমান গুলজার।

অনুষ্ঠানে নায়ক আলমগীর বলেন, “শুরু হলো ‘নতুন মুখের সন্ধানে-২০১৮’। আশা করি, অনেক ভালো ভালো শিল্পী আমাদের মাঝে আসবেন এবং দর্শক-মন জয় করবেন। আমরাও নতুন-পুরাতন মিলিয়ে ভালো চলচ্চিত্র নির্মাণ করার চেষ্টা করব। কিন্তু সিনেমা চালাব কোথায়? আমাদের দেশে সিনেমা হল নেই। যা আছে তাতে ছবি চালাতে অনেক সমস্যা। সেখান থেকে প্রযোজক টাকা আনতে পারে না। যে কারণে সরকারের উদ্যোগ নিয়ে সিনেমা হলগুলোকে ডিজিটাল করাসহ কিছু পদক্ষেপ নিলেই আমাদের চলচ্চিত্র ঘুরে দাঁড়াতে পারে। বছরে হাজার হাজার কোটি টাকা বাজেট হয়। অথচ মাত্র দুইশ কোটি টাকা হলেই আমাদের চলচ্চিত্র ঘুরে দাঁড়াতে পারে। আশা করি, আমাদের অর্থমন্ত্রী এই টাকাটা দিয়ে চলচ্চিত্রকে বাঁচাবেন।”

চলচ্চিত্র শিল্পে অর্থ বরাদ্দের ব্যাপারে অনুষ্ঠানেই অঙ্গীকার করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি বলেন, ‘আমি বেশ কিছুদিন আগেই এই অনুষ্ঠানে আসার জন্য সময় দিয়েছি। অনুষ্ঠানেও সময়মতো এসে পৌঁছেছি। তার মানে আমার ভালোবাসা আছে। আমি সাধারণত কোনো অনুষ্ঠানে গেলে সেখানে টাকা চাইলে সরাসরি কিছু বলি না। পরে বিষয়টা আমি অনুমোদন দিয়ে দিই। তবে আপনাদের বলে গেলাম, ইনশাআল্লাহ কিছু হবে, আমি এ বিষয়ে কিছু করব।’

এই অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন চলচ্চিত্র-সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, নবীন-প্রবীণ তারকাশিল্পী, পরিচালক, প্রযোজক ও কলাকুশলীরা।

নায়ক, নায়িকা, পার্শ্ব-অভিনেতা, খলনায়ক, কমেডি ও শিশুশিল্পী এই ছয়টি ক্যাটাগরিতে শিল্পী নেওয়া হবে। আগামীকাল মঙ্গলবার থেকেই আবেদন করতে পারবেন শিল্পীরা। নিজেদের ওয়েবসাইটে ফরম ছাড়বে পরিচালক সমিতি।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির উদ্যোগে এবং বিএফডিসির সহযোগিতায় ‘অফট্র্যাক ইভেন্টস অ্যান্ড  অ্যাডভারটাইজিং’ এবং ‘টিম ইঞ্জিন’-এর ব্যবস্থাপনায় শুরু হয়েছে ‘নতুন মুখের সন্ধানে-২০১৮’। এই রিয়েলিটি শো সম্প্রচার করছে এশিয়ান টিভি।

মান্না, সোহেল চৌধুরী, দিতি, অমিত হাসান, আমিন খান, মিশা সওদাগরসহ জনপ্রিয় অনেক শিল্পী চলচ্চিত্রে এসেছেন ‘নতুন মুখের সন্ধানে’ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে এর আগে ১৯৮৪, ১৯৮৮ ও ১৯৯০ সালে মোট তিনবার ‘নতুন মুখের সন্ধানে’ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছিল।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx