নিউজটি পড়া হয়েছে 17

বিশ্ব সুন্নী আন্দোলন, সিলেট জেলার উদ্যোগে মুসলিম মিল্লাতের শহীদ দিবস পালন

সিলনিউজ২৪.কমঃ  বিশ্ব সুন্নী আন্দোলন, সিলেট জেলার উদ্যোগে মুসলিম মিল্লাতে রশহীদ দিবস পালন ঈমান-দ্বীন রক্ষায় এবং মিল্লাত ও মানবতার মুক্তি সাধনায় সর্বজনীন মানবিক রাষ্ট্র ব্যবস্থা কায়েমের আহবান শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মাওলানা এমদাদুল হক বলেছেন, মহান জাতীয় শহীদ দিবস কারবালার অতুলনীয় মহান শাহাদাত প্রাণের বিনিময়ে কুফর-জুলুম-স্বৈরতার ধারক ও বাহক অপশক্তির কবল থেকে পবিত্র কলেমার রক্ষা তথা ঈমানী আত্মা ও দ্বীনের প্রকৃত রুপরেখা এবং সমগ্র মানবমন্ডলীর জন্য ন্যায়-মানবতা-নিরাপত্তা-অধিকার-স্বাধীনতা-কল্যাণের ধারা ও কাঠামো রক্ষার শাহাদাত। তিনি বলেন, আত্মা ও জীবনকে বাতেল জালেম অপশক্তির আঁধার-রুদ্ধতা-বিনাশ থেকে মুক্ত রাখা এবং সত্য ও মানবতামুক্ত প্রবাহ জারি রাখাই ছিল শাহাদাতের কারবালার অন্যতম মূল লক্ষ্য।মিথ্যা-অবিচার-স্বৈরতার কবল থেকে সত্য ও মানবতার মুক্তি সাধনায় সর্বকালের সর্বোচ্চ মহা শাহাদাত, মুসলিম মিল্লাতের মহান জাতীয় শহীদ দিবস শাহাদাতে কারবালা দিবস উপলক্ষে বিশ্ব সুন্নী আন্দোলন, সিলেট জেলার উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।বিশ্ব সুন্নী আন্দোলন, সিলেট জেলা শাখার সভাপতি প্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার মমতাজ উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে গতকাল শুক্রবার বিকালে সিলেট কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সাহিত্য আসর কক্ষে এই আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।ইফতেখার হোসাঈন শামীমের সঞ্চালনায় সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিশ্ব সুন্নী আন্দোলন, সিলেট জেলার সহ সভাপতি বদিউল আলম,শাহিন মিয়া, সদস্য সচিব হাসান মাসুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহনেওয়াজ নীরব, যুগ্ম সদস্য সচিব হিরণ লাল শিকদার, বিশ্ব সুন্নী আন্দোলন, মৌলভীবাজার জেলার সভাপতি আজিজুর রহমান আজিজ। সভায় বিশ্ব সুন্নী আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা এবং ইনসানিয়াত বিপ্লবের প্রবর্তক হজরত আল্লামা ইমাম হায়াত-এর লিখিত ১০ই মহররম মহান জাতীয় শহীদ দিবস উপলক্ষে জীবনের মর্ম অভিধান পাঠ করেন যুগ্ম সদস্য সচিব জান্নাত উম্মে, স্বাগত বক্তব্য রাখেন নিশাত তাসনিম। সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন আশরাফুল আলম সজিব, নাত শরীফ পাঠ করেন আব্দুর রাজ্জাক।সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মেহেদী হাসান, সিরাজুল ইসলাম,বিউটি আক্তার লিলি, সুইটি আক্তার মিলি প্রমুখ। এছাড়া সভায় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজের শিক্ষার্থী এবং বিভিন্ন শ্রেণি পেশার ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। সভার শেষে মিলাদ মাহফিল হয় এবং মোনাজাত
পরিচালনা করেন প্রধান অতিথি শাবিপ্রবির সহযোগী অধ্যাপক মাওলানাএমদাদুল হক।সভাপতির বক্তব্যে প্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার মমতাজ উদ্দিন চৌধুরী কারাবালার শাহাদাত দয়াময় আল্লাহ তায়ালা ও তাঁর প্রিয়তম হাবীব (সা)-এর প্রেমের নিদর্শন উল্লেখ করে বলেন, দয়াময় আল্লাহ তায়ালার উদ্দেশ্যে সবকিছুর উর্ধ্বে প্রাণাধিক প্রিয়নবীর প্রেমই শাহাদাতে কারবালার মূলমর্ম, যে প্রেম ভিত্তিক আত্মা ব্যতীত শাহাদাতে কারবালার শিক্ষা চেতনা যেমন উপলব্ধি করা যাবে না তেমনি আত্মা ও জীবন আঁধার কলুষতায় নিমজ্জিত হয়ে বাতেল জালে অপশক্তির কোনো না কোন দিকে বিকিয়ে যাবে।বদর ওহুদ কারবালার পক্ষ ও বিপক্ষ এবং শিক্ষা চেতনা এক ও অভিন্ন উল্লেখ করে বলেন, মহামান্য খোলাফায়ে রাশেদীন, মকবুল সাহাবায়ে কেরাম, সত্যের ইমামবৃন্দ ও মহান আউলিয়াকেরাম যুগ থেকে যুগান্তরে চিরন্তন সত্যের ধারাবাহিকতা যাদের পূর্ণাঙ্গ পথ ও দিশা থেকে বিচ্যুত হয়ে অপশক্তির বিনাশী প্রক্রিয়ায় আত্মসমর্পনই সত্য ও মানবতার বিপর্যয়ের প্রধান কারণ।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx