বিনিয়োগ করে কেউ ক্ষতিগ্রস্ত হবে এটা আমরা চাই না : প্রধানমন্ত্রী

সিলনিউজ অনলাইনঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, বিনিয়োগ করে কেউ ক্ষতিগ্রস্ত হবে এটা আমরা চাই না। আর খুব বেশি যেনো লোভে না পড়ে যান। সীমা রেখেই পা ফেলতে হবে। তাহলে কেউ ক্ষতিগ্রস্ত হবে না।

তিনি বলেন, যে প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করবেন, সেই প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে সকল তথ্য সংগ্রহ করে নিবেন। কোথায় আপনি বিনিয়োগ করছেন এবং এর ভবিষ্যৎ কী হতে পারে। সে ব্যাপারে যথেষ্ট সজাগ থাকবেন।

প্রধানমন্ত্রী আজ ১২ সেপ্টেম্বর (বুধবার) বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) প্রতিষ্ঠার ২৫ বছর পূর্তি উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপনারা যাই করেন না, গালি খেতে হয় সরকারের। তাই ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের বিশেষভাবে অনুরোধ করছি কারও কথায় প্ররোচনায় না পড়ে নিজে জেনে বুঝে তারপর পদক্ষেপ নেন।

শিক্ষা, অর্থনীতি, মানবসম্পদ, স্বাস্থ্য সবকিছুতে বাংলাদেশের অভাবনীয় উন্নতির কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ২০৪১ সালের মধ্যে দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশ হবে উন্নত, সমৃদ্ধ, সুখী দেশ। এই লক্ষ্য নিয়েই আমরা কাজ করছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ইতোমধ্যে উন্নয়শীন দেশের যোগ্যতা অর্জন করেছে। স্বল্পোন্নত দেশের কাতার থেকে উত্তরণ হয়েছে। আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে, ২০২১ সালে বাংলাদেশ হবে মধ্যম আয়ের দেশ। আর ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে দক্ষিণ এশিয়ায় উন্নত, সমৃদ্ধ বাংলাদেশ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমরা জনগণের ভাগ্যোন্নয়নের কথা মাথায় রেখে সুদূর প্রসারী পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছি। ২১০০ সালে বাংলাদেশ কেমন হবে সেই পরিকল্পনাও আমরা নিয়ে রেখেছি। আমরা ডেল্টা প্ল্যান করেছি, যাতে ভবিষ্যত প্রজন্ম একটি সমৃদ্ধ দেশ উপহার পায়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০২০ সালে আমরা জাতির পিতার জন্মশত বার্ষিকী পালন করবো। আর ২০২১ সালে আমরা স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করবো।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx