মালিক সমিতির নেয়া সিদ্ধান্ত মানছেন না বাস মালিকরা।

সিলনিউজ অনলাইনঃ পরিবহন মালিক সমিতির নেয়া সিদ্ধান্ত মানছেন না বাস মালিকেরা। রাজধানীতে বাস চলাচল করছে চুক্তিতেই, চালু হয়নি নির্ধারিত বেতন ভিত্তিক পরিবহন ব্যবসা। সমিতি বলছে, এ ব্যবস্থা চালুর জন্য সিটি করপোরেশনের কাছে অবকাঠামোগত সুবিধা চেয়েছে মালিকেরা। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ নৈরাজ্য কমাতে প্রয়োজন কারিগরি পরামর্শ।

নিরাপদ সড়কের দাবিতে ছাত্র আন্দোলনের সময় সড়কে শৃংখলা ফেরাতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নের পাশাপাশি বাস মালিকরাও ঘোষণা দিয়েছিলো রাজধানীতে চুক্তিতে আর বাস না চালানোর। ধারনা করা হয়েছিল, কমে যাবে অসুস্থ প্রতিযোগীতা, কমবে সড়ক দূর্ঘটনাও।

এ ঘোষণা বাস্তবায়নে গেল মাসে ঘটা করে রাজধানীর একাধিক জায়গায় পরিদর্শক দলও বসিয়েছিলো মালিক সমিতি। সে সময় সিদ্ধান্ত অমান্য করায় পাঁচটি পরিবহন কোম্পানির সদস্যপদও বাতিল করে দিয়েছিলো তারা। পেরিয়ে গেছে একমাস সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন কতটা সম্ভব হয়েছে?

মালিকেরা বলছেন, চালকেরা বেতন ভিত্তিক বাস চালাতে আগ্রহী নন। এছাড়া এ নিয়মে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন বাস মালিকেরা। 

মালিক সমিতি বলছে, বিভিন্ন কোম্পানীর ব্যানারে রাজধানীতে আড়াই হাজার বাস মালিক রয়েছে। পরিবহন ব্যবসা চালিয়ে যাবার জন্য তারা চালক ও হেলপারদের ওপর নির্ভরশীল। তবে চালক সঙ্কট থাকায় চুক্তির বাইরে বেতন ভিত্তিক বাস চালাতে তারা রাজী নন। এছাড়া এই নির্দেশ মানতে হলে চালকদের নিয়োগপত্র, টিকিট কাউন্টার স্থাপনসহ বেশ কিছু কাজ করতে হবে। 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গণ পরিবহন ব্যবস্থাকে শৃংখলায় আনতে কারিগরি ও পেশাগত দক্ষতা জরুরী।

সিল/ ইন্ডিপেনডেন্ট

ফেসবুক মন্তব্য
xxx