সাহেবের বাজারে শিয়ালের উৎপাত : নারী-পুরুষসহ আহত ৫ রক্ষা পায়নি ১৮টি গরু মহিষ

মো. মতিউর রহমান, বিমানবন্দর থেকেঃসিলেট সদর উপজেলার শহরতলী সাহেবের বাজার আশপাশের এলাকায় গত শুক্রবার রাত থেকে শিয়ালের তান্ডবে ৫জন নারী পুরুষ আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। পাশাপাশি একই রাতে ১৩টি মহিষ ও ৫টি গরু শিয়ালের কামড়ে আক্রান্ত হয়েছে । এনিয়ে আশপাশের এলাকায় শিয়াল আতংক দেখা দিয়েছে।

এদিকে শিয়ালের আক্রমনে শিকার মানুষ, গরু মহিষের চিকিৎসা ব্যয় বহুল হওয়ার ঠিকমত চিকিৎসা নিতে পারছেন না আহতরা।এনিয়ে চিকিৎসায় দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা। তারা সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

শুক্রবার রাত ৯টা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বেশ কয়েকটি গ্রামের নারী পুরুষ সহ গরু মহিষের উপর হামলা চালায়। এনিয়ে এলাকায় চরম আতংক বিরাজ করছে। শিয়ালের আক্রমনে আহতরা হলেন সাহেবের বাজার এলাকার রামপুর গ্রামের আব্দুল হান্নানের ছেলে মো. শামীম আহমদ (১৭), দেবাইর বহর গ্রামের কালা মিয়ার ছেলে আব্দুল মুকিত (২৫), ফতেহগড় গ্রামের মাহমদ আলীর ছেলে জাবেদ মিয়া (৩০), কোনাটিলা গ্রামের মজলু মিয়ার স্ত্রী রুশনা বেগম (২৫), বাজারতল গ্রামের সুনাফর আলীর স্ত্রী জরিনা বিবি (৫০)।

গবাদি পশু আক্রান্ত ১৮টি এদের মধ্যে রয়েছে, বড়বন গ্রামের হবিবুর রহমান ও ফয়জুল মিয়ার ৬টি মহিষ, ২টি গরু, একই গ্রামের তৌয়াহির আলীর ৩টি মহিষ, ৩টি গরু, শহিদ মিয়ার ১টি মহিষ, দেবাইর বহর গ্রামের তজমুল মিয়ার ৩টি মহিষ এর উপর আক্রমন চালায়। তবে পাগল হওয়া ৩টি শিয়ালের মধ্যে ১টি শিয়াল মারা যায়। শুক্রবার রাত ৩ টার দিকে বড়বন গ্রামের ফিরু খাঁর বাড়ীতে একটি কুকুরের উপর আক্রমন চালায়, পরে বাড়ীর লোকজনের উপরও হামলা চালায় এক পর্যায় পরিবারের সদস্যরা মিলে শিয়ালটিকে মেরে ফেলেন।
রাতের বেলায় শিয়ালের ভয়ে মানুষের চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। জরুরি কাজ ছাড়া কেউ বাড়ীর বাহিরে বের হচ্ছেন না। যারা জরুরি প্রয়োজন রয়েছে তারা লাঠি হাতে নিয়ে বের হচ্ছেন বলে সরেজমিনে দেখা যায়।

মহিষ ও গরুর মালিক ফয়জুল মিয়া জানান, আমরা অসহায় হয়ে পড়েছি একেকটি ইনঞ্জেকশনের দাম তিন হাজার টাকা করে। আমরা এত টাকা কোথায় থেকে দিব ভেবে পাচ্ছিনা। আমাদের সহযোগীতায় সরকারের সাহায্য কামনা করছি।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx