আপদকালীন চারা উৎপাদনে নতুন প্রযুক্তি ভাসমান বীজতলা

হাবিবুর রহমান- হাবিব,শাল্লা (সুনামগঞ্জ) থেকেঃ আপদ কালীন সময়ে বিশেষ করে বন‍্যা আক্রান্ত এলাকায় যেখানে বীজতলা করার জন্য স্থান/মাঠ পাওয়া যায় না সেখানে ধানের চারা উৎপাদনে ভাসমান বীজ তলা (এ প্রযুক্তি) খুবই কার্যকরী।
৪ঠা সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার দুপুরে শাল্লা উপজেলা কৃষি অফিসের উদ্যোগে আয়োজিত  ভাসমান বীজ তলার চারা বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জ জেলার উপ-পরিচালক ডিএই,- বশির আহমদ সরকার ।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জ জেলা প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা ডিএই  ড.,হযরত আলী।
অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন শাল্লা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কেএম বদরুল হক।এছাড়া অনুষ্ঠানে মনিটরিং কর্মকর্তা খাদ্য অধিদপ্তর ঢাকা- সাইদুর রহমান , আব্দূস সামাদ, এইও জামালগঞ্জ সহ শাল্লা উপজেলার সকল এস এএও ,এসএপি পিও, এবং উপজেলার ২০জন চাষী উপস্থিত ছিলেন।
কৃষি বিভাগের উদ্যোগে এ বছর শাল্লা উপজেলার ৪টি ভাসমান বেডে আমন ধান বিআর২২ জাতের বীজ উৎপাদন করা হয়।
কৃষকরা এ নতুন প্রযুক্তি গ্রহনে উদ‍্যোগী ভবিষ্যতে এ প্রযুক্তি খুবই সম্প্রসারণ হবে।
উপ-পরিচালক আর বলেন এখানে বোর ধান প্রধান ফসল, আমন ধান এখানে প্রায় ৬ হাজার হেক্টর জমিতে আবাদ হয়।আমন ধানের আবাদ ধীরে ধীরে বৃদ্ধি হচ্ছে।তাছাড়া-পতিত জমিতে পানি সাশ্রয়ী ফসল ভুট্টা,গম, সরিষা, করার জন্য পরামর্শ দেন।পার্চিং ,সারিতে ধানের চারা রোপণ , সুষম মাত্রায় সার ও কীটনাশক ব্যবহারে পরামর্শ দেন।
ফেসবুক মন্তব্য
xxx