যথাসময়েই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে, কেউ নির্বাচন ঠেকাতে পারবেনা : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

সিলনিউজঃ যথা সময়েই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে, কেউ নির্বাচন ঠেকাতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, অাগামী নির্বাচনে ভোট কারচুপি করতে পারবে না বলেই বিএনপি ইভিএম এর বিরোধিতা করছে। 

আজ ২ সেপ্টেম্বর (রোববার) বিকালে গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। নেপালে অনুষ্ঠিত বিমসটেক সম্মেলনে অংশগ্রহণ নিয়ে এ সংবাদ সম্মেলন করেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ইভিএম ডিজিটাল বাংলাদেশেরই একটা পার্ট। আমরা এখন টাকা পাঠাচ্ছি অনলাইনে, গাড়ি কিনছি অনলাইনে, সবজি কিনছি অনলাইনে। এটা ঠিক যে প্রযুক্তি আমাদের সবসময়ই সুবিধা করে দেয় তা কিন্তু নয়।

শেখ হাসিনা বলেন, আজকে ইভিএমের বিরুদ্ধে বিএনপি সবচেয়ে বেশি সোচ্চার। ভোটের রাজনীতিতে কারচুপি করা এটা তো স্বাধীনতার পর বাংলাদেশে নিয়ে এসেছিল জিয়াউর রহমান। আজকে বিএনপি যখন ভোটের কারচুপি নিয়ে কথা বলে তখন তাদের তো জন্মলগ্নটা দেখা দরকার। কোন জন্মের মধ্যদিয়ে তারা এসেছিল? ১৫ ফেব্রুয়ারি নির্বাচনের কথা সবার মনে আছে। যাদের জন্মটাই কারচুপির মধ্যদিয়ে তারা আবার কারচুপি নিয়ে কথা বলে।

সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যারা এতিমের টাকাও ছাড়ে না, যারা গরীবের টাকা লুট করে খায়, এই সুদখোর, ঘুষ খোর তাদের জনগণ কেন মেনে নেবে সেটাই আমার প্রশ্ন। তাঁদের যদি জনগণ ভোট দেয় তবে আমরা এত কিছু করার পরও কেন ভোট দেবে না? বিএনপির নির্বাচনে আসার বিষয়ে সরকারের কিছু করার নেই। এটা তাদের নিজস্ব ব্যাপার। তাদের সঙ্গে নির্বাচন নিয়ে কোনো আলোচনা হবে না।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জনগণ ভোট দিলে ক্ষমতায় আছি, না দিলে নেই। এ নিয়ে কোনো আক্ষেপও নেই। নির্বাচন যথাসময়েই হবে।

আরেক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার প্রক্রিয়ায় মিয়ানমার সাড়া দিতে শুরু করেছে। রোহিঙ্গাদের তালিকা মিয়ানমার পেয়েছে বলে স্বীকার করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ট। বাংলাদেশের সাথে সমঝোতা অনুযায়ী প্রথম দফায় ৩ হাজারের মত রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমার প্রস্তুত বলেও প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছেন তিনি।

বদরুদ্দোজা চৌধুরী ও ড. কামালের ঐক্য প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ফাঁকা হাড়ি বাজে বেশী। আমিও চাই রাজনৈতিক জোট হোক, নির্বাচনে সবাই আসুক, কনটেস্ট করুক। নির্বাচন অবাধ নিরপেক্ষ হোক তাতে কোনো সন্দেহ নেই। জনগণের ভোট চুরি করতে আসিনি। জনগণকে দিতে এসেছি।

সম্ভাব্য জাতীয় নির্বাচন ঘিরে অস্থিরতার শঙ্কা-উদ্বেগ নিয়ে আরেক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘নির্বাচন হবেই। কেউ ঠেকাতে পারবে না, কারও শক্তি নেই নির্বাচন ঠেকানোর। যারা ঠেকাতে চেয়েছিল, তাদের আগেরবার যেমন জনগণ মোকাবেলা করেছিল, এবারও মোকাবেলা করবে।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx