নিউজটি পড়া হয়েছে 27

কোরবানির পশুর চামড়া সংগ্রহের দাম নির্ধারণ।

সিলনিউজ অনলাইন ঃঃ পবিত্র ঈদুল আযহায় কোরবানির পশুর চামড়া সংগ্রহের জন্য দাম নির্ধারণ করে দিয়েছে সরকার। ঢাকায় ট্যানারি ব্যবসায়ীরা লবণযুক্ত প্রতি বর্গফুট গরুর চামড়া কিনবেন ৪৫ থেকে ৫০ টাকায়; ঢাকার বাইরে এর দাম হবে ৩৫ থেকে ৪০ টাকায়। আর সারাদেশে খাসির চামড়া বিক্রি হবে ১৮ থেকে ২০ টাকা। বকরির চামড়া বিক্রি হবে ১৩ থেকে ১৫ টাকায়।   

আজ (বৃহষ্পতিবার) সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে কোরবানির পশুর চামড়ার দর সংক্রান্ত এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বৈঠক শেষে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, লবণযুক্ত অথবা লবণ ছাড়া, যাই হোক না কেন, প্রতিবর্গফুট গরুর চামড়া দাম (ঢাকায়) ৪৫ থেকে ৫০ টাকা, ঢাকার বাইরে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, খাসি ১৮ থেকে ২০ টাকা, বকরি ১৩ থেকে ১৫ টাকা।

গত বছরের চামড়ার দরের তুলনায় এবার গরুর চামড়ার দর প্রতি ফুটে পাঁচ টাকা কমেছে। গত বছর প্রতি ফুট গরুর চামড়ার দাম নির্ধারিত হয়েছিল সর্বনিম্ন ৫০ থেকে সর্বোচ্চ ৫৫ টাকা। একইভাবে খাসির চামড়ার দাম গত বছরের চেয়ে প্রতি ফুটে কমেছে ২ টাকা করে। গত বছর এর দর ছিল ২০ থেকে ২২ টাকা। অন্যদিকে, বকরির চামড়াতেও এবার প্রতি ফুটে ২ টাকা করে দাম কমিয়েছে সরকার। গত বছর এই দর ছিল ১৫ থেকে ১৭ টাকা।

গত বছরের চেয়ে কোরবানির চামড়ার দাম কমার কারণ সম্পর্কে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, মূলত দুটি কারণে এবার কোরবানির চামড়ার দাম কমানো হয়েছে। প্রথম কারণ, আন্তর্জাতিক বাজারে চামড়ার চাহিদা ব্যাপক হারে কমেছে। দ্বিতীয়ত সাভারে চামড়া শিল্পনগরী স্থাপিত হলেও এখনও তা পরিপূর্ণভাবে কাজ শুরু করতে পারেনি। নানা ধরনের ত্রুটি রয়েছে সেখানে। যে কারণে সেখানে এখনও ঠিকভাবে চামড়া প্রক্রিয়াজাত করা সম্ভব হচ্ছে না।

তিনি আরও বলেন, চামড়া যাতে পাচার না হয়, সে জন্য সীমান্ত এলাকায় সতর্ক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, গত বছর কোরবানি উপলক্ষে সারা দেশে এক কোটি পাঁচ লাখের মত গবাদিপশু বিক্রি হয়েছিল। আর এবার দেশের খামারগুলোতে কোরবানিযোগ্য পশু আছে এক কোটি ১৬ লাখ।

চাঁদ দেখার উপর কোরবানির ঈদ নির্ভর করবে। ১২ আগস্ট জিলহজ মাসের চাঁদ উঠলে ২২ আগস্ট বাংলাদেশের মুসলমানরা কোরবানির ঈদ উদযাপন করবে।

সূত্রঃ একুশে টিভি 
 

ফেসবুক মন্তব্য
xxx