জগন্নাথপুরে আব্দুস সামাদ আজাদ আঞ্চলিক মহাসড়কের পৌরশহর অংশে নির্মাণ কাজ চলছে দ্রুত গতিতে।

জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ জগন্নাথপুরে আব্দুস সামাদ আজাদ আঞ্চলিক মহাসড়কের পৌর শহর অংশে সড়কের নির্মাণ কাজ চলছে দ্রুত গতিতে। নয়নাবিরাম সড়ক নির্মাণে পাল্টে যাচ্ছে জগন্নাথপুর পৌর শহরের দৃশ্যপট। গুনগত মানের মালামাল ব্যবহারের মাধ্যমে দরপত্রের শর্ত অনুযায়ী ঠিকাদারী প্রতিষ্টান আঞ্চলিক মহাসড়কের জগন্নাথপুর পৌর শহরের ১ কিলোমিটার অংশে রিজিড প্যাভমেন্ট নির্মান কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে পৌর শহরে বিভিন্ন প্রয়োজনে আসা নারী শিশুসহ সকল বয়সী লোকজন মহাসড়কের ব্যতিক্রমী নির্মাণ কাজ দেখে অনেকেই হতবাক দৃষ্টিতে দাঁড়িয়ে কাজের দৃশ্যপট অবলোকন করতে দেখো গেছে। সিলেট বিভাগের মধ্যে উন্নতমানের রিজিড প্যাভমেন্ট কাজের মধ্যে জগন্নাথপুর উপজেলায় এটি দ্বিতীয় কাজ। সংশ্লিষ্ট দপ্তর সূত্রে জানা গেছে পৌর শহরের ১কিলোমিটার অংশে রিজিড প্যাভমেন্ট কাজ হওয়ায় শতাধিক বছরেও সড়কের ক্ষতি হবেনা।

সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে জগন্নাথপুর পৌর শহরের অংশে প্রায় ১ কিলোমিটার সড়কের কাজ চলছে দ্রুত গতিতে। রিজিড প্যাভমেন্ট কাজের ফলে নয়নাবিরাম সড়ক নির্মানে পাল্টে যাচ্ছে জগন্নাথপুর পৌর শহরের দৃশ্যপট। ফলে ব্যবসায়ীসহ জনসাধারনের মধ্যে সর্বত্রই বিরাজ করছে মহা আনন্দ। সম্পূর্ন ব্যতিক্রমী মহাসড়কের নির্মান কাজ সম্পূর্ন হলে পৌর শহরের প্রধান ব্যবসা কেন্দ্র জগন্নাথপুর বাজারের বিভিন্ন মার্কেট, বিপনী বিতানগুলোতে সৌন্দর্য্য বর্ধন সৃষ্টি হবে।

ইতোমধ্যে শহরের বেশ কয়েকটি মার্কেট বিপনী বিতানগুলোতে চলছে আধুনিকায়নের কাজ। মহাসড়কের কাজ শেষ হলেই নান্দনিক শহরে রূপান্তরিত হবে প্রবাসী অধ্যুষিত জগন্নাথপুর পৌরসভা। জানা যায়, পাগলা-জগন্নাথপুর-আউশকান্দি আব্দুস সামাদ আজাদ আঞ্চলিক মহাসড়কের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার ডাবর পয়েন্ট থেকে জগন্নাথপুর পৌর শহরের হবিবনগর এলাকা পর্যন্ত ৮৪ কোটি টাকা ব্যয়ে দরপত্রের মাধ্যমে ২২ কিলোমিটার সড়কের মধ্যে ২১ কিলোমিটার সড়কের পুন:সংস্কার ও ১ কিলোমিটার অংশে রিজিড প্যাভমেন্ট নির্মাণ কাজটি পেয়েছেন ঢাকার এম এম বিল্ডার্স ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেড-ইন্সপ্যাকটা ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেড জেবি।

আড়াই বছর মেয়াদের মধ্যে কাজ সম্পন্ন করনের আদেশ অনুযায়ী ২১ কিলোমিটারের মধ্যে ১টি ব্রিজ ও ১টি কালভার্ট নির্মান করা হবে। আঞ্চলিক মহাসড়কের জগন্নাথপুর পৌর শহরে ১ কিলোমিটার অংশে সড়কটির নাজুক দশার ফলে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নানের নির্দেশে ঠিকাদারী প্রতিষ্টান প্রথমেই পৌর শহরের ১ কিলোমিটার অংশে এপ্রিল মাসে রিজিড প্যাভমেন্ট কাজ শুরু করা হলেও গত ১৯ মে আনুষ্টানিকভাবে সড়কের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করেছেন জগন্নাথপুর-দক্ষিন সুনামগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান।

ইতোমধ্যে ঠিকাদারী প্রতিষ্টান শহরের ১ কিলোমিটার অংশের কাজ সম্পন্ন করনে দ্রুতগতিতে নির্মান কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের দরপত্রের শর্ত অনুযায়ী ঠিকাদারী প্রতিষ্টান সড়কটিতে প্রথমে স্কেরিপাই (আচরানু) এসকে বেটর দিয়ে উচু নীচু সমান করার পরে লেবেল করার জন্য রুলার ও সাব বেজ মেটেরিয়াল দিয়ে লেবেল করা হয়। পুনরায় রুলার দিয়ে কমপেকশন করার পর ৪ ইঞ্চি (১শ মিলি) সিসি ঢালাই পরে ১২ ইঞ্চি (৩শ মিলি) আরসিসি ঢালাই যা রিজিড প্যাভমেন্ট হিসেবে পরিচিত। এতে ১০, ১২, ১৬ ও ৩২ মিলিমিটারের সঠিক মানের রড এবং সিমেন্ট ব্যবহার করা হচ্ছে।

রিজিড প্যভমেন্ট কাজে ভারত থেকে এলসির মাধ্যমে সিলেটের ভোলাগঞ্জ হয়ে উন্নতমানের কাঁটা পাথর এনে কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। এছাড়াও কাজের গুনগত মানের জন্য সাইট ল্যাবরেটরীতে পরীক্ষা করে কাজের প্রয়োজনীয় মালামালের গুনগত মান নিশ্চিত হওয়ার পর কাজ করা হচ্ছে। এসব নির্মান সামগ্রী স্থানীয়ভাবে পরীক্ষা করা সম্ভব না হলে বুয়েট থেকে পরীক্ষা করার পর নির্মান সামগ্রীগুলো কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে।

এদিকে মহাসড়টির রিজিড প্যাভমেন্ট কাজের ঠিকাদারী প্রতিষ্টানের শতাধিক নির্মান শ্রমিক প্রতিদিন কাজ করে যাচ্ছেন। কাজের তদারকীতে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী এস এম সাইফুল ইসলাম, উপ-সহকারি প্রকৌশলী (এসও) মুস্তাফিজুর রহমান, কার্য সহকারি আব্দুর রহিম ছাড়াও ঠিকাদারী প্রতিষ্টানের প্রজেক্ট ম্যানেজার প্রকৌশলী হারুন অর রশীদের নেতৃত্বে প্রজেক্ট প্রকৌশলী একে এম আনোয়ার হোসেন, সাইট প্রকৌশলী রাহাত হোসেন মীর, ল্যাবরেটরী টেকনোশিয়ান মো: জিল্লুর রহমান সার্বক্ষনিক নির্মাণ কাজে অবস্থান করে সঠিক ও গুনগতমানের নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর সুনামগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী মো: শফিকুল ইসলাম জানান, দরপত্রের শর্ত অনুযায়ী গুনগতমান যাছাই পূর্বক ঠিকাদারী প্রতিষ্টান ইতোমধ্যে মহাসড়কের নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। পৌর শহরে প্রানকেন্দ্র দিয়ে বহমান মহাসড়কের নির্মান কাজটি সুষ্টুভাবে সম্পন্ন করনে শহরবাসীসহ সর্বমহলের সহযোগিতা কামনা করছেন।

ঠিকাদারী প্রতিষ্টানের প্রজেক্ট ম্যানেজার প্রকৌশলী হারুন অর রশীদ জানান, জগন্নাথপুর পৌরসভার স্লুইচ গেইট থেকে হবিবনগর পর্যন্ত ১ কিলোমিটার অংশে দ্রুত গতিতে কাজ চলছে। দরপত্রের শর্ত অনুযায়ী গুনগতমানে মালামাল ব্যবহারের মাধ্যমে এবং সংশ্লিষ্ট দপ্তরের দায়িত্বরত প্রকৌশলী ও কার্যসহকারিদের উপস্থিতিতে নির্মাণ শ্রমিকরা কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের সার্ভে অনুযায়ী সড়কটির কাজ চলমান রয়েছে। রিজিড প্যাভমেন্ট কাজ শেষে দু-পাশের ড্রেনেজ কাজ সম্পন্ন করা হবে।

এদিকে জগন্নাথপুর-দক্ষিণ সুনামগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নানের প্রচেষ্টায় পাগলা-জগন্নাথপুর-রানীগঞ্জ-আউশকান্দি পর্যন্ত আব্দুস সামাদ আজাদ আঞ্চলিক মহা সড়কটির ২১ কিলোমিটার অংশে পুন:সংস্কার এবং পৌর শহরের ১ কিলোমিটার অংশে রিজিড প্যাভমেন্ট নির্মান কাজ শুরু হয়েছে। এছাড়াও কুশিয়ারা নদীতে সিলেট বিভাগের বৃহৎ রানীগঞ্জ সেতুর নির্মাণ কাজও চলমান রয়েছে। জগন্নাথপুর উপজেলাবাসীর স্বপ্ন পূরণে বৃহৎ ২টি কাজ রানীগঞ্জ সেতু ও আঞ্চলিক মহাসড়কের নির্মাণ কাজ চলমান থাকা এবং শীঘ্রই সম্পন্ন করনে প্রানপন প্রচেষ্টার ফলে উপজেলাবাসী অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নানের প্রতি অভিনন্দন জানিয়েছেন।

সিলনিউজ/বিপ্লব/১১জুলাই

ফেসবুক মন্তব্য
xxx