নিউজটি পড়া হয়েছে 43

এয়ারপোর্ট থানা এলাকা থেকে প্রতারক চক্রের দুই সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-৯

সিলনিউজ ঃঃ সিলেট নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে প্রতারণার ফাঁদ পেতে সাধারণ ও নিরীহ মানুষকে প্রতারণার শিকারে পরিনত করে আসছে একটি প্রতারকচক্র। সিএনজিতে সাধারণ যাত্রীদেরকে নকল স্বর্ণের বার দেখিয়ে আসল স্বর্ণের বারের কথা বলে তাদেরকে ঠকাচ্ছে। স্বর্ণের বার ক্রয়ের পরে প্রতারিত ব্যক্তি বাসায় গিয়ে দেখতে পায় তার নিকট স্বর্ণের বারটি সোনালি রং এর পিতলের তৈরি। একটি ছোট পার্সে বিশেষ কৌশলে মোড়ানো থাকে নকল স্বর্ণের বারগুলো, এর সাথে হাতে লেখা একটি চিরকুট থাকে যেখানে স্বর্ণের পরিমাণ লেখা থাকে, ঐ চিরকুটটি পড়ার পর যেন মনে হয় যে পার্সটি কারো হারিয়ে গিয়েছে। তখন সিএনজিতে বসা সাধারন যাত্রীকে এই প্রতারকচক্র লোভ দেখিয়ে ফাঁদে ফেলে সর্বস্ব লুটে নিয়ে পালিয়ে যায়।

৯ জুলাই র‌্যাবের গোয়েন্দা দলের অনুসন্ধানে জানা যায় যে, এরূপ একটি প্রতারক চক্র সিলেটে অবস্থান করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৯ স্পেশাল কোম্পানী, সিলেট ক্যাম্পের একটি বিশেষ দল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ মনিরুজ্জামান এর নেতৃত্বে বিকাল ৬ ঘটিকার সময় এসএমপির এয়ারপোর্ট থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে।

অভিযানে এসএমপির এয়ারপোর্ট থানাধীন বড়শলা জনপ্রিয় ভ্যারাইটিজ ষ্টোর এর সামন থেকে ২ টি নকল স্বর্ণের বার, দুইটি মোবাইল সেটসহ মূল প্রতারক চক্রের ২ সদস্যকে আটক করে র‌্যাব। আটককৃত ব্যক্তিরা হলো গোয়াইনঘাট কলামাদ গ্রামের মোঃ আহমদ আলীর পুত্র শাহ আলম (৩৬),  চৌকিদিঘি ৩১/১ এর মোহাম্মদ আলী পুত্র মোঃ শাহরাত (২৫)।

আটককৃত প্রতারকরা সিলেট জেলার বিভিন্ন থানা এলাকায় চুরি ও সিলেট মহানগরীর সংঘবদ্ধ প্রতারক ও ছিনতাইকারী চক্রের সদস্য বলে জানায় এবং প্রতারনার কথা প্রাথমিক জিঙ্গাসাবাদে স্বীকার করে। উদ্ধারকৃত নকল স্বর্ণের বার এবং গ্রেফতারকৃত আসামীদের এসএমপির এয়ারপোর্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।
 

ফেসবুক মন্তব্য
xxx