ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে সেশন ফি বন্ধের দাবীতে শিক্ষার্থী-অভিভাবক আন্দোলন সভা অনুষ্ঠিত

সিলনিউজ২৪.কমঃ মহামান্য হাইকোর্টের নির্দেশনা মেনে ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে বেআইনিভাবে পুন:ভর্তি ফি না দেওয়ার জন্য অভিভাবকদের প্রতি আহবান জানানো হয়েছে। পাশাপাশি ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের কর্তৃপক্ষকে হাইকোর্টের নির্দেশনা মেনে পুন:ভর্তি ফি গ্রহণ থেকে বিরত থাকার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। সবার জন্য আধুনিক শিক্ষা নিশ্চিত করতে নেতৃবৃন্দ প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদকে এ ব্যাপারে ভূমিকা রাখার জন্য উদ্বুদ্ধ করা হয়েছে। এছাড়া এ ব্যাপারে জেলা শিক্ষা অফিস ও জেলা প্রশাসনকে কার্যকরী ও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে।

গতকাল সিলেট ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল অভিভাবক এসোসিয়েশন-এর উদ্যোগে সবার জন্য আধুনিক শিক্ষা, শিক্ষা ব্যয় কমানোর লক্ষ্যে মহামান্য হাইকোর্টের রায় ও সরকারি নির্দেশনা সিলেটের সকল ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে বাস্তবায়নের দাবীতে শিক্ষার্থী-অভিভাবক আন্দোলন সভায় বক্তারা এ আহবান জানান।
গতকাল বুধবার এসোসিয়েশনের সভাপতি , বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ মাহবুব চৌধুরীর সভাপতিত্বে সিলেট কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সাহিত্য আসর কক্ষে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সিলেটের বিভিন্ন ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকরা অংশগ্রহণ করেন।

এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক এডভোকেট আব্দুল মুকিত অপির সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন বিবিআইএস-এর পক্ষে এসোসিয়েশনের সহ সভাপতি কয়েছ উদ্দিন আহমদ, রাইজ স্কুলের অভিভাবক ও এসোসিয়েশনের সহ সভাপতি সৈয়দ গোলজার আহমদ, আনন্দনিকেতনের অভিভাবক ও সহ সভাপতি মনজুর আহমদ, গ্রামার স্কুলের অভিভাবক ও সহ সভাপতি এজহারুল হক চৌধুরী মন্টু।

সভায় বিভিন্ন ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সৈয়দ মোশাররফ আলী তুহিন, নোমান আহমদ (খাজাঞ্চিবাড়ি স্কুল), কামরুজ্জামান বাবুল, জাবেদুর রহমান, শামীম আহমদ, বেলাল আহমদ, নজরুল ইসলাম, মো. শফিকুল ইসলাম(বিবিআইএস), ইমতিয়াজ তারিক, শাকিল মুস্তারিন, ফয়সল আহমদ(আনন্দনিকেতন), নাদিম আহমদ (রাইজ স্কুল), শফিকুর রহমান, নাজমুল ইসলাম প্রমুখ। সভায় বক্তারা বলেন, নিজ নিজ অবস্থান থেকে অভিভাবকসহ সর্বস্তরের মানুষদেরকে সোচ্চার হতে হবে। সিলেটের আনন্দনিকেতন স্কুল, গ্রামার স্কুল, খাজাঞ্চিবাড়ি এবং রাইজ স্কুলসহ অন্যান্য সকল ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের কর্তৃপক্ষ এবং পরিচালনা পর্ষদের প্রতি বিশেষভাবে আহবান জানিয়ে বলা হয়, অবিলম্বে এই সেশন ফি প্রথা বন্ধ করতে হবে। অন্যথায়, আইন অমান্য করার অপরাধে আইন ও আন্দোলনের মুখোমুখি হতে হবে। উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ২৫ মে মহামান্য হাইকোর্ট ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে পুন:ভর্তি ফি গ্রহণ করাকে বেআইনি বলে রায় দেন। এরই প্রেক্ষিতে ২০১৭ সালের ২৪ জুলাই সেটা আইনে পরিণত হয়। সভায় সিলেটসহ বাংলাদেশের সকল ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের কর্তৃপক্ষকে এই আইন মেনে চলার জন্য অনুরোধ করা হয় এবং অভিভাবকদেরকে ও এ ব্যাপারে সোচ্চার হওয়ার আহবান জানান।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx