সিলেটে মহানগর নেতাদের নাম ভাঙ্গিয়ে অভিনব পদ্ধতিতে ছিনতাই ও প্রতারণা।

নিজস্ব প্রতিবেদক ঃঃ সিলেটের জিন্দাবাজার, জেলরোড এবং নয়াসড়ক এলাকাজুড়ে একটি সংঘবদ্ধ প্রতারকচক্র সিলেট মহানগরের সরকার দলীয় কয়েকজন রাজনৈতিক নেতার নাম ভাঙ্গিয়ে টার্গেট করে সাধারণ ছেলে মেয়েদের ডেকে নিয়ে যায় এবং পরে তাদের সিন্ডিকেট করে দামি ফোন, নগদ অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই চক্রের মধ্যে রয়েছে মহিলা সদস্যও।

অভিনব পন্থায় মানুষের কাছ থেকে মোবাইল ফোন, নগদ টাকাসহ মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যাওয়ার বেশ কয়েকটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে তারা জানান, একটি সংঘবদ্ধ চক্র হঠাৎ করে যেকোন ব্যক্তিকে টার্গেট করে সেই চক্রের মেয়েরা প্রথমে এগিয়ে গিয়ে বলে ‘আমায় ফোন দিয়ে ডিস্টার্ব করো কি জন্য/ আমার টাকা নিয়ে নিছে’ এইসব বলে ঝগড়া শুরু করে। আর তখন সেই মেয়ের কথিত ভাই সাথে সাথে চলে আসে। এরপর তারা শুরু করে তর্ক এবং টার্গেট করা ব্যক্তিকে বিচার বা সায়েস্তা করার জন্য একপর্যায়ে আড়ালে বা নির্জন জায়গায় নিয়ে যায়। পরে সেই ব্যক্তির কাছ থেকে সবকিছু হাতিয়ে নিয়ে উদাও হয়ে যায় বোনের ভাইয়েরা এবং বোন।

গতরাত (মঙ্গলবার) প্রায় ১২টার দিকে সিলেটের পূর্ব জিন্দাবাজার বারুতখানা পয়েন্টের ডাচ বাংলা ব্যাংক-এর পাশে এরকম আরেকটি ঘটনা ঘটে। জানা যায়, রিক্সা থেকে একটি ছেলে ডেকে নিয়ে যায় আরেকটি ছেলে। তারা বলে তার ছোট ভাই খুব ঝামেলায় করেছে, টাই সেখানে যাওয়ার জন্য বলে। তখন রিক্সারোহী ছেলেটি যেথে অপারগতা জানালে দুষ্কৃতিকারীরা কোমরে থাকা ছুরি দেখিয়ে তাকে রিক্সা থেকে নামিয়ে নিয়ে যায়। পরে তাদের মধ্যে একজন মহানগর ছাত্রলীগ-এর সাবেক এক সভাপতির ছোটভাই পরিচয় দিয়ে ঐ ছেলের মোবাইল ফোনসহ নগদ অর্থ হাতিয়ে নিয়ে চলে যায়। এ ব্যাপারে মুখ খুললে মেরে ফেলারও হুমকি দেয়। এর কিছুক্ষণ পর একইভাবে আরেকজনের কাছ থেকেও একই স্টাইলে নগদ টাকা, মোবাইল হাতিয়ে নেয় দুষ্কৃতকারীর।

এরকম ঘটনার শিকার জিন্দাবাজারের এক ব্যবসায়ী জানিয়েছেন, কিছুদিন আগেও জিন্দাবাজার সোনালী ব্যাংকের সামন থেকে তার মোবাইল, মানিব্যাগ হাতিয়ে নিয়েছে একটি চক্র। তিনি বলেন, নেতাদের নাম ভাঙ্গিয়ে এ ধরণের অপরাধ করার ফলে মানুষ ভয়ে মুখ খুলছেনা এবং পুলিশের কাছেও অভিযোগ করেনা। অবিলম্বে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে এ ধরণের  অপরাধের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জোর দাবী জানান তিনি।

সিলনিউজ/রুবেল/৬জুন১৮

ফেসবুক মন্তব্য
xxx