নিউজটি পড়া হয়েছে 307

সুরমা নদীতে পাওয়া লাশের পরিচয় মিলেছে, গ্রেফতার স্বামী

জি,এস কছির আলী,দোয়ারা বাজার প্রতিনিধিঃ দোয়ারা বাজারের সুরমা নদী থেকে উদ্ধার করা তরুণীর লাশটি রেলওয়ে মেইল বিভাগের কর্মী বৈশাখী ধর তৃপ্তির।

গতকাল বৃহস্পতিবার তৃপ্তির বাবা লাশটি তার মেয়ের বলে শনাক্ত করেন। নিখোঁজের ৫দিন পর তৃপ্তির লাশ মিলে, এর আগে বুধবার তৃপ্তির স্বামী রিংকু চন্দ্র ধর সিলেটের ডাক-এ বিজ্ঞাপন দিয়েছিলেন, তবে তৃপ্তির বাবা আশুতোষ ধর মেয়েকে হত্যার দায়ে রিংকুর বিরুদ্ধে থানায় মামলা করলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

দোয়ারা বাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুশীল কুমার জানান, গত বুধবার দুপুরে সুনামগঞ্জের দোয়ারা বাজারের সুরমা নদী থেকে অজ্ঞাতনামা তরুণীর লাশটি উদ্ধার করা হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে তৃপ্তির বাবা লাশটি তার মেয়ের বলে শনাক্ত করেন,। তৃপ্তির গ্রামের বাড়ি সিলেট সদর উপজেলার দাসপাড়ায়, তিনি শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০০৯-১০ শিক্ষাবর্ষের গণিত বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন। গণিতে মাস্টার্স করেছেন তৃপ্তি।
এদিকে, তৃপ্তির বাবা আশুতোষ ধর বাদী হয়ে তার স্বামী রিংকুর বিরুদ্ধে দক্ষিণ সুরমা থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় রিংকুর বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচণার অভিযোগ আনা হয়েছে। মামলার পর রিংকু ধরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

দক্ষিণ সুরমা থানার ওসি খায়রুল ফজল জানান- বৈশাখী ধর তৃপ্তি সিলেট রেলওয়ে মেইল সার্ভিসের কর্মী ছিলেন। ৭-৮ মাস আগে রিংকুর সঙ্গে তৃপ্তির বিয়ে হয়। তার স্বামী রিংকু ধর পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশনের অফিসার। তারা সিলেটের দক্ষিণ সুরমার বাবনা পয়েন্টে একটি ভাড়া করা ফ্ল্যাটে বসবাস করতেন। গত ২১ এপ্রিল সকালে নিখোঁজ হন তৃপ্তি। এরপর বুধবার সুনামগঞ্জের দোয়ারা বাজারে সুরমা নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। মামলার পর রিংকুকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের পর তৃপ্তির মৃত্যুর কারণ স্পষ্ট হবে।

ফেসবুক মন্তব্য