নিউজটি পড়া হয়েছে 1974

নিপা : এক সফল নারীর এগিয়ে চলা…

তপতী রাণী দাস (নীপা)। পিতা কৃষ্ণ পদ দাস এবং মাতা সন্ধ্যা রাণী দাস। চার বোনের মধ্যে নিপা জ্যৈষ্ঠ। বাবা, মা, বোনেরা সবাই থাকেন কানাডায়। নিপার জন্ম ১৯৭৬ সালের ১১ই জানুয়ারি মৌলভীবাজার জেলায়। স্থানীয় সুলতানপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তার শিক্ষার হাতেকড়ি। এরপর হাফিজা খাতুন গালর্স হাই উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক এবং মৌলভীবাজার সরকারী কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক শেষ করেন তিনি। ছোটবেলা থেকে নিপা’র ডাক্তার এবং পাশাপাশি নাচ শেখার ইচ্ছে ছিল। কিন্তু নিজের ইচ্ছেগুলো পূরণ না হলেও একমাত্র কন্যা সুপ্রিয়া বণিক ঐশীকে দিয়েই সেই আকাংখা পূর্ণতা দিয়েছেন। কন্যা ঐশী মায়ের দুটি ইচ্ছে পূরণের দিকেই এগুচ্ছেন।

তপতী রাণী দাস (নীপা) ১৯৯৫ সালের ৯ ফেব্রুয়ারী গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানীর ব্যবস্থাপক শ্রীমান সমর বণিকের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। ১৯৯৮ সালে ১৯ শে জানুয়ারী তাদের কল জুড়ে আসে একমাত্র কন্যা সন্তান সুপ্রিয়া বণিক ঐশী। সৌন্দর্য চর্চার প্রতি প্রবল আকর্ষণ এবং নিজের ঐকান্তিক চেষ্টা এবং স্বামীর সর্বাত্মক সহযোগিতায় চট্টগ্রাম শহরের চেরাগীর পাহাড়ে অবস্থিত সুপ্রতিষ্ঠিত বিউটি পার্লার রুমা-তে শখের বশে প্রায় বছরখানেক প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে চট্টগ্রামে নিজেই ছােট পরিসরে একটি বিউটি পার্লার গড়ে তুলেন।

এরপর তার ব্যবসার পরিধি বাড়তে থাকে। সিলেট শহরের জিন্দাবাজারে ২০০৬ সালে কানিজ প্লাজায় ‘গ্রেসাস বিউটি পার্লার’ প্রতিষ্ঠা করা বিউটিশিয়ানের যাত্রা শুরু করেন। পরবর্তীতে পার্টনারশীপে সুবিদবাজারে ‘বি-ফেয়ার বিউটি পার্লার’ পরিচালনা করা এবং বর্তমানে মিরের ময়দানে একক মালিকানায় ‘নিউ বঁধূয়া বিউটি পার্লার’ পরিচালনা করছেন।ব্যবসার পাশাপাশি থেমে নেই তার পথচলা। সিলেট উইমেন্স চেম্বারসহ অসংখ্য সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথেও জড়িত আছেন নিপা।

শুধু সৌন্দর্য চর্চায়ই নয়, নিপা নিজেকে ছাড়িয়ে যাচ্ছেন নিজ প্রতিভার সবকিছুতেই। স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল-এই বিষয়টিও নিজের ভাবনার মধ্যে ছিল তার। সিলেটে মহিলা/পুরুষদের মানসম্পন্ন একটি শরীরচর্চা কেন্দ্রের অভাব অনুভব করায় একসময় কুমাড়পাড়ায় পার্টনারশীপে আধুনিক সরঞ্জামে সজ্জিত ‘সেলিব্রিটি ফিটনেস ক্লাব’একটি শরীরচর্চা কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করেন নিপা। আর শিল্প সংস্কৃতিতেতো রয়েছে নিপার সরব পদচারণা। মৌলভীবাজারে স্কুল ও কলেজে পাঠরত অবস্থাতেই আওয়ামী শিল্পী গােষ্ঠীর একজন সদস্য হিসাবে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন। পরবর্তীতে সিলেট শহরের বিশিষ্ট রবীন্দ্র সঙ্গীত শিল্পী প্রতিকেন্দ টনির কাছে সঙ্গীত শিক্ষার পর সিলেট ও ঢাকার বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন। ‘জাতীয় রবীন্দ্র সঙ্গীত সম্মেলন পরিষদ সিলেট’ এর একজন সদস্য হিসাবে বেঙ্গল ফাউন্ডেশন কর্তৃক অয়ােজিত বেঙ্গল সংস্কৃতি উৎসব ২০১৭-তে সঙ্গীত পরিবেশন করেন তিনি। সৌন্দর্য ভাবনার সাথে জড়িয়ে থাকায় নিতান্তই শখের বশে সিলেট শহরের একটি সুনামধন্য প্রতিষ্ঠান বৈতালিক’ এর পােষাকের মডেল হওয়া এবং অলংকারের ব্যবসায় স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান ‘হ্যাভেন জুয়েলার্স’ এর পণ্যের বিজ্ঞাপনে মডেলিং করেন যা টেলিভিশনে দীর্ঘদিন প্রচারিত হয়েছে। সর্বোপরি তপতি রানী দাস নিপা এমনি করে সিলেটের সংস্কৃতি ও বিউটিশিয়ান অঙ্গনে অত্যান্ত সুনামের সাথে এগিয়ে যাচ্ছেন। একজন সফল ব্যবসায়ীর পাশাপাশি সামাজিক, সাংস্কৃতিক সর্বঙ্গনেই নিপার রয়েছে বিচরণ।

তপতী রাণী দাস নীপা’র সর্বাঙ্গীণ সফলতাই কাম্য।

বিভাগীয় সম্পাদক/প্রিয়মুখ/২৬এপ্রিল২০১৮

 

ফেসবুক মন্তব্য
xxx