স্বাধীনতা বিরোধীদের সন্তানদের সরকারি চাকরিতে অযোগ্য ঘোষণার দাবি।

সিলনিউজ অনলাইন ঃঃ স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকারের সন্তানদের সরকারি চাকরিতে অযোগ্য ঘোষণার দাবি জানিয়েছে ‘আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান’ নামে একটি সংগঠন।

আজ (শনিবার) দুপুুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক গণসমাবেশ থেকে এ দাবি জানান সংগঠনটির নেতারা। একইসঙ্গে সরকারি চাকরিতে স্বাধীনতাবিরোধীদের সন্তানদের বরখাস্তের দাবিও জানান তারা।

সংগঠনটির সভাপতি সাজ্জাদ বলেন, বাধ্যতামূলকভাবে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা রেখে বিসিএস’র প্রিলিমিনারি থেকে তা কার্যকর করতে হবে। ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহাল রেখে তা বাস্তবায়নে কমিশন গঠন করতে হবে।

তিনি বলেন, রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় গণতান্ত্রিক সরকার থাকায় আন্দোলন করার অধিকার সবারই রয়েছে, কিন্তু তথাকথিত কোটা সংস্কার আন্দোলনের নামে  মুক্তিযোদ্ধাদের হেয় প্রতিপন্ন করা হয়েছে। আন্দোলনে মুক্তিযোদ্ধাদের কটূক্তি করা হয়েছে। 

বক্তারা বলেন, কোটা বাতিলের সময় এখনও আসে নাই, এখনও মুক্তিযোদ্ধাদের হাজার হাজার সন্তান চাকরি পাননি, অনেক বেকার রয়েছে। আমরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবি জানাই, কোটা বাতিলের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করবেন।

গণসমাবেশে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা ৯ দফা দাবি তুলে ধরেন। দাবির মধ্যে রয়েছে জাতির পিতা, মুক্তিযোদ্ধা ও প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটূক্তি করা ব্যক্তিদের শাস্তি, মুক্তিযোদ্ধাদের সাংবিধানিক স্বীকৃতিসহ মুক্তিযোদ্ধা সুরক্ষা আইন। এছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসভবনে হামলাসহ দেশব্যাপী নৈরাজ্য সৃষ্টিকারী স্বঘোষিত রাজাকারদের কঠোর শাস্তির দাবি এবং সবার জন্য চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা তুলে ধরার দাবিও জানান তারা।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক রাশেদুজ্জামান শাহীন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক আ ক ম জামাল উদ্দিন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক কাজী সাইফুদ্দিন ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সভাপতি মেহেদি হাসান প্রমুখ।

সূত্রঃ দৈনিক সমকাল 

ফেসবুক মন্তব্য
xxx