জগন্নাথপুরে রিজিয়া বেগমের ইন্তেকালে বিভিন্ন মহলের শোক প্রকাশ

জগন্নাথপুর(সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি: যুক্তরাজ্য বিএনপির অন্যতম নেতা সমাজসেবী শিক্ষানুরাগী এম এ কাদির ও জগন্নাথপুর পৌর বিএনপির সভাপতি এম এ মতিনের মায়ের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান, জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব আব্দুল মনাফ, সাবেক মেয়র ও সাবেক উপজেলা বিএনপির সভাপতি আক্তারুজ্জামান আক্তার, সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবি সমিতির সভাপতি জেলা বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট মল্লিক মঈন উদ্দিন সুহেল, জগন্নাথপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আবু হোরায়রা ছাদ মাষ্টার, জগন্নাথপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র শফিকুল হক শফিক, জগন্নাথপুর পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলার গিয়াস উদ্দিন মুন্না, জগন্নাথপুর ব্রিটিশ বাংলা এডুকেশন ট্রাস্টের চেয়ারম্যান আব্দুল আশিক চৌধুরী, জেনারেল সেক্রেটারী মহিব চৌধুরী, জগন্নাথপুর উপজেলা বিএনপির সেক্রেটারী কবির আহমদ, পৌর বিএনপির সাধারন সম্পাদক হারুনুজ্জামান হারুন, জগন্নাথপুর অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি ওয়াহিদুর রহমান ওয়াহিদ, সাধারন সম্পাদক মো: আব্দুল হাই, দৈনিক নয়াদিগন্ত প্রতিনিধি মো: হুমায়ুন কবির, দৈনিক ভোরের কাগজ প্রতিনিধি রিয়াজ রহমান, বৈশাখী নিউজ টুয়েন্টিফর ডটকম’র জগন্নাথপুর প্রতিনিধি মো: আব্দুল ওয়াহিদ, দৈনিক সুনামগঞ্জ প্রতিদিন প্রতিনিধি বিপ্লব দেবনাথ প্রমূখ।
উল্লেখ্য, পৌর শহরের বাড়ি জগন্নাথপুর এলাকার বাসিন্দা রিজিয়া বেগম (৭০) গত সোমবার ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন। ঐ দিন রাত সাড়ে ৮টায় মরহুমার নিজ বাড়িতে জানাযার নামাজ শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন হয়েছে। জানাযার নামাজে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আতাউর রহমান, জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র আব্দুল মনাফ, সুনামগঞ্জ জেলা আইনজীবি সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট মল্লিক মঈন উদ্দিন সুহেল, জগন্নাথপুর পৌসভার প্যানেল মেয়র শফিকুল হক শফিক সহ সহস্্রাধিক ধর্মপ্রান মুসল্লীগন উপস্থিত ছিলেন। একজন ধার্মিক ও প্রজ্ঞাশীল নারী হিসেবে তিনি এলাকায় পরিচিত ছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি ২পুত্র নাতী নাতনীন সহ অসংখ্য আত্মীয় স্বজন গুনগাহী রেখে গেছেন।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx