তিস্তা নদীর পানি বণ্টন চুক্তির বিষয়ে ভারতের প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যাক্ত।

সিলনিউজ অনলাইন ঃঃ নিরাপত্তার বিষয়টি মাথায় রেখে মায়ানমারে রোহিঙ্গাদের দ্রুত প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশকে সব রকম সহযোগিতা করবে ভারত। এছাড়া দ্রুততম সময়ের মধ্যে তিস্তা নদীর পানি বণ্টন চুক্তি করার বিষয়েও দেশটি তার প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যাক্ত করেছে। সফররত ভারতের পররাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শেষে এ কথা জানিয়েছেন পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক। বৈঠকে দুদেশের মধ্যে ৬টি সমঝোতা স্মারকও স্বাক্ষরিত হয়।

২৯ জানুয়ারি নতুন দায়িত্ব নেয়ার পর বিজয় কেশব গোখেলের প্রথম বাংলাদেশ সফর এটি। কেশবের প্রথম সফর হলেও দু’দেশের মধ্যে আলোচনার বিষয়গুলো বেশ পুরনো। গত বছরের ৮ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারত সফরের সময় বেশ কিছু বিষয় আলোচনা করে এসেছেন নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে।

সেসব বিষয়তো ছিলোই , দুই পররাষ্ট্র সচিবের বৈঠকে এর সঙ্গে বাড়তি গুরুত্ব পেয়েছে বাংলাদেশের এ মুহূর্তে বড় সমস্যা রোহিঙ্গা ইস্যুটি। ভারত আগের মতোই জানিয়েছে, রোহিঙ্গাদের দ্রুত মায়ানমারে প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশের পাশে আছে দেশটি।

বিজয় কেশব খোকেল বলেন, ‘আমরা সব সময় বলেছি, প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক চাই আমরা। আর প্রতিবেশীদের মধ্যে বাংলাদেশের গুরুত্ব সবার আগে। রোহিঙ্গা ইস্যুটি সমাধান, দ্রুত তাদের ফিরিয়ে দেয়ার ব্যাপারে বাংলাদেশকে আমাদের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে। আমরা গত সেপ্টেম্বরে ৩ লাখ রোহিঙ্গাদের জন্য মানবিক সহযোগিতা পাঠিয়েছি। দ্রুত দ্বিতীয় দফার সহযোগিতা কক্সবাজারে এসে পৌঁছবে। অন্যদিকে, রাখাইনেও রোহিঙ্গাদের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে আমরা সহযোগিতা করছি।

শহীদুল হক বলেন, ‘ভারত রোহিঙ্গা ইস্যুতে আমাদের অবস্থানকেই সমর্থন করেছে। রোহিঙ্গাদের সম্মান ও মর্যাদার সঙ্গে তাদের দেশে ফিরিয়ে দেয়ার বিষয়ে তাদের পদক্ষেপে আমরা সন্তুষ্ট।

তবে, ভারতের সঙ্গে আলোচনা হলেই সবটুকু আলো থাকে তিস্তায়। শীর্ষ পর্যায় থেকে শুরু করে বিভিন্ন পরিষদে অনেকবারই হয়েছে আলোচনা, অপেক্ষাও বেড়েছে। ভারত প্রতিশ্রুতিবদ্ধ চুক্তি হবে। সে কথা উঠে এলো এবারের আলোচনায়ও।

সূত্রঃ সময় টিভি

শহীদুল হক আরো বলেন, ‘পানি সম্পদ আমাদের দুদেশের সম্পর্কের অন্যতম বন্ধন হিসেবে কাজ করে। অভিন্ন নদীগুলোর পানি বণ্টন বিষয়ে আমরা কথা বলেছি, সেখানে তিস্তার বিষয়টিও এসেছে। ২০১১ সালে দুদেশের সরকারের মধ্যে করা চুক্তি অনুযায়ী দ্রুততম সময়ের মধ্যে এটা সমাধানে ভারত তার প্রতিশ্রুতি পুর্নব্যক্ত করেছে।’

বৈঠকের আলোচনা শেষে শিলিগুড়ি-পাবর্তীপুর গ্যাস পাইপ লাইন স্থাপন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও বাংলাদেশ বেতারসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সহযোগিতার বিষয়ে ৬টি সমঝোতা স্মারকে সই করেন দুই দেশের প্রতিনিধিরা।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx