নিউজটি পড়া হয়েছে 142

স্মরণ: “কফিন কাঠের ঘুমে” সালু আলমগীর!- জহীর মুহাম্মদ

স্মরণ:
“কফিন কাঠের ঘুমে” সালু আলমগীর!
জহীর মুহাম্মদ
সালু আলমগীর। দাপুটে একজন কবি ও গবেষক। অবশেষে “কান্সার” আক্রান্ত হয়ে সমর্পিত হলেন মৃত্যু নামক রাব্বে কারিমের অমোঘ বিধানের কাছে। প্রাতিষ্ঠানিক পাঠদান শেষে রাজ্যের ক্লান্তি নিয়ে বৃষ্টিতে ভিজে রুমে ফিরলাম। আসরের নামাজ শেষে ভাত খাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। হঠাৎ 
ফেইসবুকে চোখ বুলাতেই প্রিয় এই কবির প্রস্থান সংবাদে শরীরটা কাঁপছিল।
মৃত্যু এক অনিবার্য নিয়তির নাম। তবুও তার চলে যাওয়াটা ভিন্নভাবে হৃদয়ে ধাক্কা দিল। সোশ্যাল মিডিয়ার কল্যাণে বহুদিন যাবত তার সাথে আমার সখ্যতা।
কিছুদিন আগে তার একটি স্টাটাস পড়ে যারপরনাই খারাপ লাগছিল। তিনি লিখেছেন-” মৃত্যুর পরে চোখ দুটি দান করে যেতে চাই! বন্ধুদের পরামর্শ আশা করছি”। তখনি বুঝেছি কবির কিছু একটা হয়েছে। পরক্ষণে জানলাম কবির শরীরে মরণ বিমার ক্যান্সার বাসা বেঁধেছে। কবির মৃত্যুর আগেকার স্টাটাস/কবিতাগুলো সত্যিই বিদায়ের বারতা বহন করেছিল। তার শেষ বইটির শিরোনাম ছিল “কফিন কাঠের ঘুমে”! তাহলে কি তিনি তার শেষযাত্রার বিষাদ ধ্বনি আগে থেকেই ঠাহর করতে পেরেছিলেন? আমার তো তাই মনে হয়! সত্যিই কবি আজ “কাঠ কফিনের ঘুমে” আচ্ছন্ন! তিনি আর জাগবেন না। তবে তার রেখে যাওয়া প্রতিটি কবিতা অবশ্যই আমাদের ক্ষণে-ক্ষণে জাগিয়ে তুলবে। কবি সালু আলমগীর। তোমার সাথে আমার স্বশরীর কোনদিন সাক্ষাত হয় নি। শুধু পরিচয় ছিল কবিতায়। তবুও তোমার বিদায় খবর ভাবতেই প্রচণ্ড রকম কষ্ট হয় আমার। পরকালে ভালো থেকো জান্নাতে। ইহকালে বেঁচে থেকো কবিতায়; কবিতার জলসাতে….
ফেসবুক মন্তব্য
xxx