আইনজীবী রথীশ চন্দ্র ভৌমিক হত্যা : আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন স্ত্রী স্নিগ্ধা

সিলনিউজ অনলাইন ::: রংপুরে আইনজীবী রথীশ চন্দ্র ভৌমিককে হত্যার পরিকল্পনা করা হয় দুই মাস আগে। ষড়যন্ত্রে যুক্ত করা হয়, রথীশের মোটরসাইকেল চালক মিলন মহন্তকে। আর মরদেহ লুকাতে সহযোগিতা নেয়া হয় আরও দুই জনের। আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এসব কথা জানিয়েছে রথীশের স্ত্রী স্নিগ্ধা। আর দশ দিনের রিমান্ডে নিয়ে স্নিগ্ধার প্রেমিক কামরুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

আইনজীবী রথীশ হত্যার আসামি স্নিগ্ধা ভৌমিক ও কামরুল ইসলাম- দুইজনই তাজহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক। বছর তিনেক আগে, তারা সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। মাস দুয়েক আগে, পরিকল্পনা হয় রথীশ চন্দ্র ভৌমিককে হত্যার। আদালতে ১৬৪ ধারায় দেয়া জবানবন্দিতে এসব তথ্য জানিয়েছেন স্নিগ্ধা। পুলিশ জানিয়েছে এঘটনায় আরও কেউ জড়িত কিনা তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

মামলার বাদি- নিহত রথীশের ভাই সুশান্ত ভৌমিক ও রংপুরের সব শ্রেণি -পেশার মানুষ হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।

গদ ৩০ মার্চ নিখোঁজ হন আইনজীবী রথীশ চন্দ্র ভৌমিক। ৩ এপ্রিল রাতে, আসামি কামরুলের ভাইয়ের নির্মাণাধীন বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় রথীশের মরদেহ।

সিল/ইন্ডিপেনডেন্ট 

ফেসবুক মন্তব্য