নিউজটি পড়া হয়েছে 70

২১তম কমনওয়েলথ গেমসের বর্ণিল উদ্ভোধন।

সিলনিউজ অনলাইন ::: অস্ট্রেলিয়ার গোল্ডকোস্টে হয়ে গেলো ২১তম কমনওয়েলথ গেমসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। বর্ণিল আয়োজনে কারারা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়েছে প্রায় ৩ ঘণ্টার এই অনুষ্ঠান। মনোমুগ্ধকর সঙ্গীত ও নৃত্য পরিবেশনার পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়ার আদিবাসী সংস্কৃতিকে ফুটিয়ে তুলতে বিশেষ ডিসপ্লের আয়োজন করা হয়। বর্ণীল আলোতে অপরূপ সাজে সেজে ওঠে কমনওয়েলথের মঞ্চ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের পতাকা বহন করেছেন শুটার আব্দুল্লাহ হেল বাকী।

পতাকা হাতে হাস্যোজ্জ্বল আব্দুল্লা হেল বাকী। পৃথিবীর যেকোনো জায়গায় দেশকে প্রতিনিধিত্ব করাটা গৌরবের। এবারের কমনওয়েলথ গেমসে বাংলাদেশের পতাকা বহনকারী এই শুটারের পাশাপাশি কারারা স্টেডিয়ামের ট্র্যাকে রইলো বাংলাদেশি অ্যাথলিটদের গর্বিত পদচারণা।

কমনওয়েলথ গেমসের সঙ্গে ব্রিটিশ রাজ পরিবারের সম্পর্কটা ঐতিহাসিক। পৃথিবীর যেসব দেশ ব্রিটিশরা একসময় শাসন করেছে তারাই কমনওয়েলথ গেমসের অন্তর্ভুক্ত। প্রত্যক্ষ না হলেও, সেই শাসনের জাল ছিঁড়ে এসব দেশের মানুষ বের হতে পেরেছে কি না, সেসব নিয়ে বিতর্ক তোলা-ই থাকুক। ঘণ্টা বেজেছে ২১তম কমনওয়েলথ গেমসের। আপাতত আলোচনা হোক অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় এবারের গেমস নিয়ে। আলোকচ্ছটা আর নানা পরিবেশনায় মোহনীয় এক রূপ পায় কুইন্সল্যান্ড রাজ্যের গোল্ডকোস্ট।

সারা বিশ্বের প্রায় সাড়ে ৪ হাজার অ্যাথলিটকে বরণ করতে বর্ণীল সাজে সেজে ওঠে কারারা স্টেডিয়াম। অস্ট্রেলিয়ান আদিবাসী ঐতিহ্য, সৃষ্টি আর সংগ্রামকে তুলে ধরতে ছিল বিশেষ পরিবেশনা। আধুনিক প্রযুক্তির ছোঁয়ায় সমুদ্র ও সৈকতের জীবন আর জীববৈচিত্র্যের গল্পগুলোও ফুটিয়ে তোলা হয় ডিসপ্লেতে। আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণার পাশাপাশি সৌহার্দ্যের বার্তা পৌঁছে দেন ব্রিটিশ রাজপুত্র প্রিন্স চার্লস।

সট: গত বছর কমনওয়েলথ ডে’তে বেইটনে এই বার্তাটা রেখেছিলাম আমি। গেলো ৩৮৮ দিন এই বেইটন কমনওয়েলথভুক্ত সব দেশ ঘুরে এসেছে। আমি নিশ্চিত, বাকিংহ্যাম প্যালেস থেকে গোল্ডকোস্ট পর্যন্ত এই যাত্রায় সবাই এটাকে স্বাগত জানিয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার আদিবাসীদের গল্প যেটা আমরা এখানে জানলাম, সেটাই প্রমাণ করে যতো দূরেই থাকি না কেনো, কোথাও না কোথাও আমরা আসলে সবাই যুক্ত।

মনোমুগ্ধকর আয়োজন দু’চোখ মেলে উপভোগ করেন দর্শকরা। অস্ট্রেলীয় সঙ্গীতশিল্পী আর নৃত্য শিল্পীদের পরিবেশনা ছিল নজরকাড়া। রাণীর ঐতিহাসিক বেইটন রিলেতে অংশ নিয়েছিলেন ম্যাকগি, ও’নিল, ফার্নলি, লিজ এলিস, লিভারমোর ও শেলি পিয়ারসন। আগামী ১১ দিন কমনওয়েলথ গেমসের মঞ্চ মাতিয়ে রাখবেন অ্যাথলিটরা। ১৫ এপ্রিল শেষ হবে ৭১ দেশের অংশগ্রহণে আয়োজিত এই মেগা ইভেন্ট।

সুত্র: সময় টিভি

ফেসবুক মন্তব্য
xxx