জহীর মুহাম্মদের কবিতা ‘জেগে ওঠো ফের কুন্দুজের রক্তছিটায়’ (আবৃত্তিসহ)

জেগে ওঠো ফের কুন্দুজের রক্তছিটায়
জহীর মুহাম্মদ

 

রক্তাক্ত কুরআনে কারীমের কসম! 
এই আফগানের কুন্দুজ নগর
এই জেরুজালেম,কাশ্মীর আর এই আরাকানের পবিত্র ভুমি আমার। 
প্রাচ্য-প্রতীচীর প্রশস্ত জমিন, সুবিশাল আসমান,সাগর-পাহাড় আর মাটির তলায় বহমান খনিজ সম্পদও আমার। বাইতুল্লাহ শরীফ থেকে বাবরি মসজিদ ; এমনকি বাইতুল মাকদাস আর বাগদাদ শরীফের প্রতিটি ইটের সুড়কির মালিকানা আমার। 
মাশরিক থেকে মাগরিব শিমাল থেকে জুনুবের প্রতিটি পরতে-পরতে মিশে আছে মুসলিম উম্মাহর বীরত্বের সোনালী বীজ।
কোন হায়েনার ছোবল কিংবা অক্টোপাসের থাবা এ শিকড় উপড়ে ফেলতে পারেনা।

যুদ্ধবাজ কুকুরের নখের আচড় পড়তে পারে না কোন অবুঝ অসহায়ের অবয়বে।

এই সময় অসময় নয়।
এই সময় জেগে ওঠার
এই সময় রক্তের দানে রক্তের ঋণ শোধিবার!

নির্ভীক উম্মাহর ভয় নেই
মুসলিম কারো কাছে নতজানু হতে জানেনা। যারা পশ্চিমা দুনিয়ার দুগ্ধপোষ্য 
তারা মুসলিম না
তারা মানুষ না; তারা বিশ্বাস ঘাতক গৃহপালিত বেজন্মা।

আজ আফগানীর উপর রক্তবৃষ্টি!
আরাকানির উপর শকুনের শ্যেন দৃষ্টি!
অবরুদ্ধ প্রথম কিবলা জেরুজালেমের পবিত্র দুয়ার!
জ্বলছে ইরাক,ইরান,সিরায়া!
চোখের সামনেই মরছে মোর ভাই মুসলিম যার পরিচয়।

একদিন আক্রমণ আসতে পারে আমার ঘরে, মরতে পারে মোর ভাই-বোন, বাপ-মা। শাহাদাতের শরাব পানের আঞ্জাম দেয়া লাগতে পারে অন্য কোন নগরের কুরআন প্রেমিদের!

জেগে ওঠো তুমি
ঘেন্নার মলমুত্র ছিটাও শাদা ভবনের দেয়ালে-দেয়ালে।
মরতেই জন্মেছি, ভীরুর মত কেন? আয় লড়ি বীরত্বের তকমায়!

কুন্দুজ নগরের পবিত্র রক্ত দিয়ে লিখি আয় বিপ্লবের মহাকাব্য।

আবৃত্তিঃ

https://youtu.be/K3QemMxhbyU

ফেসবুক মন্তব্য