নিউজটি পড়া হয়েছে 989

নবীগঞ্জে দেবরকে অপহরণ করেছে ভাবী, ছেলেকে উদ্ধারে আদালতে মামলা করলেন মা।

নবীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ নবীগঞ্জ উপজেলার ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের আউশকান্দি কিবরিয়া রোড দেওতৈল আবাসিক এলাকা থেকে রাতের আধাঁরে রাসেল মিয়া (১৮) নামের যুবককে অপহরণের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত ২৫ মার্চ রবিবার দিবাগত রাত অনুমান ১২টার দিকে।

মামলার এজাহারে উল্লেখ, নবীগঞ্জ উপজেলার বেরীগাঁও গ্রামের মৃত লেবু মিয়ার স্ত্রী দীর্ঘদিন ধরে আউশকান্দি ইউনিয়নের দেওতৈল আবাসিক এলাকায় ছাদেক মিয়ার কলোনীতে বাসা ভাড়া করে বসবাস করে আসছিলেন। জীবিকার তাগিদে ও মিরপুর বাগান বাড়ী ব্রিক ফিল্ডে অপহৃত রাসেল মিয়া ও তার ভাই নজরুল ইসলাম শ্রমিকের কাজ করতেন। এরই সুবাদে বাহুবল থানাধীন সাত কাপন ইউনিয়নের নারিকেল তলা গ্রামে নজরুল মিয়ার শশুর বাড়িতে থাকতেন। সেখানে থেকেই তারা ব্রিক ফিল্ড শ্রমিকের কাজ করতেন।

মামলার ১নং আসামী নজরুল মিয়ার স্ত্রী চম্পা বেগমের ছোট বোনকে একটি মোবাইল ফোন ব্যবহারের জন্য ভিকটিম রাসেল মিয়া মাস খানেক পূর্বে একটি মোবাইল ফোন দিয়েছিল। এই মোবাইল ফোন ফেরৎ চাওয়াতে তাদের মধ্যে মনমালিন্য ও ঝগড়া বাঁধে। এর পর থেকে তারা বাহুবল নারিকেলতলা গ্রাম থেকে দেওতৈল বাসায় ফিরে আসেন। এরই সূত্র ধরে উভয় পক্ষের মধ্যে বিরোধ চরম অাকার ধারণ করে।

এরই জের ধরে ঘটনার সময় ও রাতে মামলার ১নং আসামী চম্পা বেগম, তার ছোট বোন সৈয়দুল মিয়ার স্ত্রী আকলিমা বেগম, সৈয়দুল মিয়া, চম্পার চাচাতো ভাই জুবাইদ ও নজরুল মিয়ার শশুর মকছুদ মিয়াসহ অজ্ঞাত আরও ৬/৭ জন মিলে একটি নোহা গাড়ী যোগে দেওতৈল তাদের ভাড়া বাসায় এসে রাসেলকে ঘর থেকে বাহিরে ডেকে নিয়ে ও মোবাইল ফেরৎ দেবার কথা বলে রাসেলকে গাড়ীর কাছে নিয়েই জোরপূর্বক গাড়ীতে তোলে নিয়ে যায় আসামীরা। এর পর থেকে ভিকটিম রাসেলের কোন সন্ধান পাওয়া যাচ্ছেনা।

এই ঘটনায় অাজ (বুধবার) হবিগঞ্জ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমল আদালত-৫ এতে ভিকটিমের মাতা কুলসুম বেগম মামলা দায়ের করলে বিজ্ঞ আদালত মামলার ভিকটিম উদ্ধার পূর্বক তদন্ত অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য হবিগঞ্জ ডিবি পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx