নিউজটি পড়া হয়েছে 68

দোয়ারা বাজারের চিলাই নদীতে রাবার ড্যাম নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ

জি,এস কছির আলী,দোয়ারা বাজার প্রতিনিধিঃ দোয়ারা বাজার উপজেলার চিলাই নদীর উজানে নির্মাণাধীন রাবার ড্যাম প্রকল্পের কাজে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। প্রায় ৮ কোটি টাকা ব্যায়ে এ রাবার ড্যাম নির্মাণ কাজ চলছে।

এ নির্মাণ কাজে অনিয়ম-দুর্নীতির প্রতিবাদে সম্প্রতি মানববন্ধন, প্রতিবাদ, বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী। অনিয়মের বিষয় উল্লেখ করে চিলাই নদী উত্তর বালিছড়া পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতির পক্ষে সম্প্রতি সংশ্নিষ্ট কর্তৃপক্ষ বরাবর একাধিক অভিযোগ করা হলেও থেমে নেই কাজ।

ওই অভিযোগে বলা হয়, এ অঞ্চলের প্রায় আড়াই হাজার হেক্টর অনাবাদি জমিতে হেমন্ত মৌসুমে চিলাই নদীর উজানে মাটির বাঁধ দিয়ে আউশ, বোরো, রবিশস্যসহ শাকসবজি চাষ করা হয়ে থাকে। এলাকার কৃষকদের কষ্ট কমাতে সরকার এখানে রাবার ড্যাম নির্মাণের উদ্যোগ নেয়। ২০১৬-১৭ সালে উপজেলার বোগলা, লক্ষ্মীপুর ও বাংলাবাজার (আংশিক) ইউনিয়নে রাবার ড্যাম নির্মাণ প্রকল্প একনেক বৈঠকে অনুমোদন দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের (বিএডিসি) অর্থায়নে এখানে রাবার ড্যাম নির্মাণে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার কাউতলির মেসার্স মোস্তফা কামাল নিয়াজ পার্ক নামের প্রতিষ্ঠানকে প্রকল্প নির্মাণে নিয়োগ দেওয়া হয়। সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজার সীমান্তে চিলাই নদীর উজানে বিএডিসি বরাদ্দকৃত এ কাজের ব্যয় ধরা হয়েছে ৭ কোটি ৯৪ লাখ টাকা। নির্মাণে নিম্নমানের কাজের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাহী প্রকৌশলীর প্রাথমিক তদন্তে নিম্নমানের মালপত্র জোগানের সত্যতা মেলে। পরে সাইটে রক্ষিত মালপত্র ল্যাবরেটরি পরীক্ষার উত্তীর্ণ না হওয়া পর্যন্ত আর নতুন মালপত্র সরবরাহ ও ব্যবহার না করার জন্য বলা হয়।

এ অবস্থায় নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মালপত্র সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা করে মান উত্তীর্ণ বলে দেখায়। কিন্তু বালিছড়া পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতি বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) পরীক্ষা করে মালপত্রের মান উত্তীর্ণ হয়নি বলে দাবি করেছেন সমিতির নেতারা। তাদের দাবি, নির্মাতা প্রতিষ্ঠান নির্দেশনা অমান্য করেই নিম্নমানের মালপত্র দিয়ে রাবার ড্যামের কাজ চালিয়ে যাওয়ায় এর আয়ুস্কাল স্থায়ী হবে না। চিলাই নদী উত্তর বালিছড়া পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতির সহসভাপতি তমিজ উদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, রাবার ড্যাম নির্মাণ কাজ শুরু হলেও এ নিয়ে নানা অভিযোগ উঠেছে। এলাকার উপকারভোগী অব্বাস উদ্দিন বলেন, এ কাজের গুণগত মান খারাপ হচ্ছে। এ বিষয়ে আমরা প্রতিবাদ করেছি, লাভ হচ্ছে না।

বোগলা ইউপি আওয়ামী লীগের সভাপতি তৈয়ব আলী মাস্টার বলেন, রাবার ড্যাম নির্মাণ কাজ নিয়ে এখানে নোংরা রাজনীতি চলছে। কাজের গুণগত মান ভালো হচ্ছে না। বোগলা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম জুয়েল বলেন, নির্মাণাধীন রাবার ড্যাম প্রকল্পের কাজে অনিয়মের বিষয়ে তদন্ত হয়েছে। রিপোর্টের খবর জানতে পারিনি। এদিকে রাবার ড্যাম নির্মাণ কাজ সম্পাদনকারী মেসার্স মোস্তফা কামাল লিমিটেডের প্রতিনিধি আবুল কালাম অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমাদের কাজে কোনো ধরনের সমস্যা নেই। সিডিউল অনুযায়ী ভালো মালপত্র দিয়েই রাবার ড্যামের নির্মাণ কাজ চলছে। বিএডিসি সুনামগঞ্জ জেলার সহকারী প্রকৌশলী হুসাইন মো. খালেদুজ্জামান বলেন, এ কাজের বিষয়ে বিভিন্ন দপ্তরে ভিত্তিহীন অভিযোগ করা হয়েছে। চিলাই নদী রাবার ড্যামের প্রকল্প পরিচালক ধীরেন্দ্র চন্দ্র দেবনাথ নির্মাণ কাজে অনিয়মের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে উচ্চপর্যায়ে একটি তদন্ত কমিটি সরেজমিন তদন্ত শেষ করেছে। কমিটির নির্দেশনা অনুযায়ী মালপত্র পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর সঠিকভাবে কাজ চলছে

ফেসবুক মন্তব্য