নিউজটি পড়া হয়েছে 67

জগন্নাথপুরে বসন্ত মেলার নামে অশ্লীল যাত্রা গান ও জুয়ার আসর বন্ধের বিরুদ্ধে ফুসে উঠছেন এলাকাবাসী

জগন্নাথপুর(সুনামগঞ্জ)প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে কলকলিয়া ইউনিয়নের সাদিপুর গ্রামের উত্তরের মাঠে বসন্ত মেলার নামে অশ্লীল যাত্রা গান ও জুয়ার আসর বন্ধের দাবিতে প্রতিবাদ সভা ও স্মারকলিপি ও বিভিন্ন স্থানে গণ সংযোগ করেছে এলাকাবাসী।

মেলার নামে প্রকাশ্যে অশ্লীলতা ও জুয়া খেলা বন্ধে দাবিতে ফুসে উঠেছেন এলাকাবাসী। এতে যে কোন অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটতে পারে। এ নিয়ে সচেতন মহলের মধ্যে ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। মেলা বন্ধ না হলে মেলার আয়োজনকারী ও সচেতন মহলের মধ্যে বড় ধরণের সংঘর্ষের আশঙ্কায় শঙ্কিত হয়ে পড়েছেন এলাকাবাসী।

এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে, ইদানিং জগন্নাথপুরে বেড়েই চলেছে মেলার নামে অশ্লীলতা ও জুয়া খেলা। এতে বিপথগামী হচ্ছে যুব, ছাত্র ও তরুণ সমাজ। বাড়ছে অপরাধ প্রবণতা। প্রতিবছর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে মেলার নামে এসব অশ্লীলতা ও জুয়া খেলা বসানোর প্রস্তুতি নিয়ে থাকেন বলে জানান স্থানীয়রা। স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিদের নিয়ে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে মেলার নামে এসব অশ্লীলতা নৃত্য ও কেডি ঘর বসিয়ে জুয়া খেলার আসর দিয়ে রমরমা বাণিজ্যের আয়োজন করে থাকেন।

যদিও এসব মেলা বন্ধের দাবিতে এলাকার সচেতন মহল প্রতিবাদ ও আন্দোলন করে আসছেন। এদিকে গত সোমবার সাদিপুর গ্রামের বাসিন্দা ইউপি সদস্য আব্দুল কাইয়ুম এবং উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার আব্দুল হক সহ প্রায় ৩ শতাধিক গ্রামবাসীর স্বাক্ষরিত স্মারকলিপি সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার,জগন্নাথপুর ও দক্ষিন সুনামগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সহ জনপ্রতিনিধির নিকট দাখিল করা হয়েছে।

স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের সাদিপুর গ্রামের উত্তরে দক্ষিন সুনামগঞ্জ উপজেলার সীমান্তে সাদিপুর গ্রামের কিছু সংখ্যাক কতিপয় লোকজন বসন্ত মেলার নামে আগামি ৮ ফেব্রুয়ারী থেকে যাত্রাগান, মদ, জুয়া ও অসামাজিক কার্যকলাপের আয়োজন করেছে। এলাকার শান্তি শৃংখলা বজায় রাখতে যাত্রার নামে অসামাজিক কার্মকান্ড বন্ধ করনের দাবী জানানো হয়েছে।

বসন্ত মেলার নামে যাত্রা ও জুয়ার আসর বন্ধের প্রতিবাদে বিগত শনিবার সন্ধ্যা রাতে প্রতিবাদ সভা হয়েছিল ও আজ মঙ্গলবার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গণসংযোগ সহ পথসভা করা হয়েছে। উপজেলার ইকড়ছই সিনিয়র মাদ্রাসা, শাহজালাল মহা বিদ্যালয় (কলকলিয়া), আটপাঁড়া উচ্চ বিদ্যালয়,বালিকান্দি মাদ্রাসা সহ এলাকার সবকয়টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মতবিনিময় করা হয়েছে। প্রতিবাদ সভায় সাদিপুর গ্রামের সর্বস্থরের জনসাধারন স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে  অংশ গ্রহন করেন।৬ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার  প্রতিবাদ সভায় সাদিপুর প্রবাসী কল্যাণ সমিতির সভাপতি হাজী বশির উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও ইউপি সদস্য আব্দুল কাইয়ুমের পরিচালনায় প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন জগন্নাথপুর উপজেলা সাবেক ডেপুটি কমান্ডার সাদিপুর গ্রামের বাসিন্দা মো: আব্দুল হক,সাবেক মেম্বার আশিবুল মিয়া,জিলু মিয়া,বর্তমান মেম্বার তারা মিয়া,যুবলীগনেতা আলমঙ্গীর হোসেন,ব্যবসায়ী লুৎফুর রহমান,সমাজ সেবক দিলোয়ার হোসেন,জাঙ্গির আলম,নাজু মিয়া,দুলা মিয়া,কনুজ মিয়া,আবু তালেব,হাজী মনর উদ্দিন,আব্দুল রহিম,আব্দুল হক,দুখু হোসাইন,কাছা মিয়া,সায়েদর মিয়া,মাষ্টার আব্দুল রহিম,শফিকুর রহমান,শাহ আব্দুল মতলিব, সুফি মিয়া,নজিউর রহমান প্রমুখ।

ইউপি সদস্য আব্দুল কাইয়ুম ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার আব্দুল হক বলেন, দুঃখজনক হলেও সত্যি ইতোমধ্যে সাদিপুর গ্রামের উত্তরে দক্ষিন সুনামগঞ্জ উপজেলার সীমান্তে সাদিপুর গ্রামের মেলা বসানো চেষ্টা করছেন আমরা এ মেলা রুখেদেব এবার মেলার বিরুদ্ধে সাধারন জনতা সহ ফুসে উঠছেন সচেতন এলাকাবাসী। বসন্ত মেলার নামে অশ্লীলতা ও জুয়া খেলার আসর বসানোর প্রস্তুতি চলছে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে সর্বস্থরের সচেতন এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। এখানে কোন অবস্থায় মেলা বসাতে দেয়া হবে না। যে কোন মূল্যে প্রতিরোধ করা হবে। এরপরও যদি মেলা বসানো হয়, তাহলে সর্বস্থরের জনতাকে সাথে নিয়ে বাধা দেয়া হবে। এতে বড় ধরণের অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটতে পারে। তাই এলাকার শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে এখানে মেলার নামে অসামাজিকতা বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানান।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জগন্নাথপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ হারুনুর রশিদ বলেন, মেলা যে স্থানে হচ্ছে এটা আমার থানার সিমানার বাহিরে এটি দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার অধিনে তারপরও চেষ্টা করছি মেলা বন্ধ রাখার।

ফেসবুক মন্তব্য
xxx