নিউজটি পড়া হয়েছে 101

সংগীত পরিচালক ফুয়াদ-এর শরীরে সফল অস্ত্রোপচার।

সিলনিউজটুয়েন্টিফোরডটকম ঃঃ সংগীত পরিচালক ফুয়াদ আল মুক্তাদিরের শরীরে সফলভাবে অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়েছে। তিনি থাইরয়েড ক্যান্সারে আক্রান্ত। ফুয়াদের স্ত্রী মায়া আল মুক্তাদির সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি জানান, সফলভাবে অস্ত্রোপচার হয়েছে। আশা করছি খুব শিগগিরই ফুয়াদ সুস্থ হয়ে উঠবেন। পাশে থাকার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন তিনি।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ১৪ জানুয়ারি এক ভিডিওিবার্তায় ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার দুঃসংবাদের খবরটি ভক্তদের জানিয়েছিলেন ফুয়াদ আল মুক্তাদির। ওই ফেসবুক বার্তায় ফুয়াদ বলেন, গত সপ্তাহে আমি চিকিৎসকের পরামর্শে প্রয়োজনীয় পরীক্ষা করেছি। আমার শরীরে প্যাপিলারি কারসিনোমা ধরা পড়েছে। এটা থাইরয়েড ক্যান্সার। তবে কোন পর্যায়ে আছে, তা এই মুহূর্তে বলতে পারছি না। থাইরয়েড ক্যান্সার হচ্ছে সব ক্যান্সারের মধ্যে সহজে নিরায়মযোগ্য। এই অসুখ নিয়ে অনেকে অনেক দিন বেঁচে থাকেন। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন।

ফুয়াদ ১৯৮৮ সালে আট বছর বয়সে বাংলাদেশ ছেড়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র চলে যান এবং ওখানে একটি জুনিয়র স্কুলে ভর্তি হন। মাঝে মাঝে দেশেও আসেন। গত কয়েক বছর ধরেই আমেরিকায় বাস করছেন তিনি। তবে তিনি সবসময় সঙ্গীত নিয়েই ব্যস্ত থাকেন এবং অবশেষে ১৯৯৩ সালে তিনি একটি ব্যান্ড দল ‘যেফির’ গঠন করেন মধু, হিমেল, শুমন এবং ফ্রেডকে সঙ্গে নিয়ে। ১৯৯৯ সালে ব্যান্ড ভেঙে যাওয়ার পূর্ব পর্যন্ত তারা অনেকগুলো গান রেকর্ড করে। তারা যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরের বাংলাদেশী বসবাসকারীদের জন্য দুইটি এলবাম মায়া ১ এবং মায়া ২ বের করেন।

যেফির ব্যান্ড ছেড়ে আসার পর তার প্রথম রেকর্ড হয় ‘রি-এভুলেশন’। অবস্কুর ব্যান্ডের কীবোর্ড বাদক সোহলে আজিজের সহায়তায় এই এলবামটি বের হয়। এই এলবামটিতে প্রধান গায়ক ও গৌণ গায়কের গাওয়া ১৪টি গান অন্তর্ভুক্ত আছে। এই এলবামে আসল গানের পাশাপাশি একই গানের রিমিক্স গান অন্তর্ভুক্ত আছে। লিটুর ‘সিলতি’ অনীলা নাজ চৌধুরীর ‘ঝিলমিল’, আমরিন মুসার ‘ভ্রমর কইয়ো’ এবং ‘মন চাইলে মন’ এর রি-মিক্সড গান এই এলবামে অন্তর্ভুক্ত আছে।

ফুয়াদ’স ভ্যারিয়েশন নং. ২৫ প্রযোজিত হয় ২০০৬ সালে। ২০০৬ সালে এরপর জি-সিরিজ এবং আরশির ব্যনারে এই এলবামে আরও দুইটি নতুন গান অন্তর্ভুক্ত করে পূর্বের এলবামটি ভ্যারিয়েশন নং. ২৫.২ নামে পুনরায় বের করা হয়। এই এলবামের কয়েকটি গানের নাম হলঃ পুনমের ‘নবীনা’ রাজিব/ফুয়াদের ‘নিটোল পায়ে’ এবং বাপ্পা মজুমদারের ‘কোন আশ্রয়’। ফুয়াদের ‘বন্য’ এলবামটি বের হয় ২০০৭ সালে জি-সিরিজের ব্যানারে। ফুয়াদ আরও কিছু এলবামে কাজ করেছেন। যেমন- সুমন ও অনীলা’র ‘এখনো আমি’, তপুর (যাত্রী’র কন্ঠে) ‘বন্ধু হবে কি?’, ফুয়াদ ফিচারিং কনা, ফুয়াদ ফিচারিং মালা, ফুয়াদ ফিচারিং মিলা ‘রি-ডিফাইন্ড’ এবং ফুয়াদ ফিচারিং বিভিন্ন শিল্পী ‘ক্রমান্বয়’ বের হয় ২০০৮ সালের ডিসেম্বরে। তিনি শেরিন, অনীলা, সুমন, তপু এবং অন্যান্য শিল্পীদের বিভিন্ন একক ও মিক্সড এলবামেও কাজ করেছেন।

সূত্রঃ একুশে টিভি

ফেসবুক মন্তব্য
xxx