সাবেক সহকর্মী পুড়িয়ে মারলেন সন্ধ্যাকে

সিলনিউজ অনলাইন ডেস্কঃ সাবেক সহকর্মীর দেওয়া আগুনে পুড়লেন ২২ বছরের সন্ধ্যা রানী। গতকাল বৃহস্পতিবার ভারতের হায়দরাবাদ রাজ্যের সেকেন্দারাবাদ এলাকার রাস্তায় সন্ধ্যার গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেন কার্তিক। পরে আজ শুক্রবার সকালে হাসপাতালে মৃত্যু হয় সন্ধ্যার।

সন্ধ্যা রানী সেকেন্দারাবাদের একটি প্রতিষ্ঠানে অভ্যর্থনাকর্মীর দায়িত্ব পালন করতেন। গতকাল সন্ধ্যা পৌনে সাতটার দিকে রোজকার মতো বাসায় ফিরছিলেন তিনি। পথে মোটরসাইকেলে করে এসে তাঁর গতিরোধ করেন পুরোনো সহকর্মী কার্তিক। দুই বছর আগে একসঙ্গে কাজ করতেন তাঁরা। সন্ধ্যার সঙ্গে তাঁর উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় হতে থাকে। একপর্যায়ে কার্তিক বোতলে করে আনা কেরোসিন ঢেলে সন্ধ্যার গায়ে আগুন ধরিয়ে দেন। কেউ দেখার আগেই পালিয়ে যান তিনি।

এনডিটিভির খবরে জানানো হয়, পুলিশ বলছে, আগুনে পুড়তে পুড়তে চিৎকার করতে থাকেন সন্ধ্যা। এ সময় পথচারীরা গিয়ে আগুন নেভান। তবে ততক্ষণে সন্ধ্যার শরীরের ৬০ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। পরে হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়।

পুলিশ বলছে, তদন্তে জানা গেছে অতীতে দুজনের মধ্যে ভালো সম্পর্ক ছিল। এক বছর ধরে চাকরি ছিল না কার্তিকের। তিনি প্রচুর মদ্যপান করতেন। কয়েক মাস ধরে সন্ধ্যাকে উত্ত্যক্ত করছিলেন। চাকরি ছেড়ে তাঁকে বিয়ে করার জন্য চাপ দিচ্ছিলেন। রাজি না হওয়ায় সন্ধ্যার সঙ্গে তাঁর নিয়মিত ঝগড়াও চলছিল।

সূত্রঃ প্রথম আলো

ফেসবুক মন্তব্য
xxx