নিউজটি পড়া হয়েছে 177

দুই শিশু রক্ষা করল ট্রেনটিকে

সিলনিউজ অনলাইন ডেস্কঃ রেললাইন দিয়ে চলে যায় একটি ট্রেন। বিকট শব্দ শুনে লাইনের কাছে এগিয়ে এল দুই শিশু। দেখতে পেল ট্রেন চলে যাওয়ার পরই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে লাইন। এমন সময় লাইন দিয়ে আসছিল আরেকটি ট্রেন। বুদ্ধিমান দুই শিশু তাদের গলায় থাকা মাফলার তুলে ধরে ওড়াতে থাকল। তাদের সংকেত পেয়ে ব্রেক চাপলেন ট্রেনের চালক। দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেল ট্রেনটি।

আজ সোমবার সকালে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী স্টেশনের অদূরে ঝিনা রেলগেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এই দুই শিশু হলো ঝিনা গ্রামের সুমন আলীর ছেলে সিহাবুর রহমান (৬) ও শহিদুল ইসলামের ছেলে টিটোন আলী (৭)।

আড়ানী স্টেশনমাস্টার নয়ন আহম্মেদ বলেন, সকাল সোয়া আটটার দিকে প্রথম কমিউটার ট্রেন পার করি। এরপর সিল্কসিটি ট্রেন পার হয়। এই ট্রেন পার হওয়ার সময় ঝিনা রেলগেটে বিকট শব্দ হয়। উৎসুক দুই শিশু সেখানে এগিয়ে যায়। গিয়ে তারা দেখতে পায় রেললাইন ভাঙা। সামনে ট্রেন আসতে দেখে তারা দুজনে রেললাইনের ওপর মাফলার টেনে ধরে। এতে ট্রেন থেমে যায়। এরপর আশপাশের মানুষ ছুটে আসে।

নয়ন আহম্মেদ বলেন, ‘তারা বিষয়টি তাৎক্ষণিক আমাকে জানায়। মিস্ত্রিরা এসে দ্রুত লাইন মেরামত করলে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়। তেলবাহী ট্রেনটি খুলনা থেকে রাজশাহী যাচ্ছিল। ওই দুই শিশুর কারণে ট্রেনটি দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে।’

শিশু দুটি বলে, তারা জমি থেকে বাড়ি ফিরছিল। এ সময় দেখে রেললাইন ভাঙা। আর ট্রেন আসতে দেখে তারা তাদের কাছের মাফলার দিয়ে ট্রেন থামিয়ে দেয়।
ট্রেনের চালক কে এম মহিউদ্দিন বলেন, দুই শিশু মাফলার দিয়ে ট্রেন থামানোর সিগন্যাল দিচ্ছে দেখে তিনি প্রথমে গুরুত্ব দেননি। ভেবেছিলেন ট্রেন থামাবেন না। কিন্তু অনেক কাছে চলে যাওয়ার পরও ওই দুই শিশু রেললাইন থেকে সরছে না দেখে তিনি ট্রেনটি থামিয়ে দেন। এতেই দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পায় ট্রেনটি।

দুই শিশুর এমন সাহসী ভূমিকার ঘটনা শুনে তাদের দায়িত্ব নিয়েছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। তিনি ঘোষণা দিয়েছেন, দুই শিশুকে প্রতি মাসে শিক্ষার জন্য এক হাজার টাকা করে বৃত্তি দেবেন। তারা যদি স্কুল, কলেজ শেষ করে উচ্চশিক্ষার জন্য পড়তে চায়, সেই দায়িত্বও প্রতিমন্ত্রী নিতে চান।

সূত্রঃ প্রথম আলো

ফেসবুক মন্তব্য